মহানগর ডেস্ক: ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে দুই শিবিরেই ছিল চরম উত্তেজনা। তবে, ফল প্রকাশের পর বিপুল সংখ্যক আসন জয় করে তৃতীয়বারের জন্য বাংলার মসনদে বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পরই শাসক দলের দিকে হিংসা আর হানাহানি অভিযোগ তুলছেন বিরোধীরা। বিভিন্ন জায়গা থেকে অশান্তির খবর আসছে। ভোট পরবর্তী প্রতিহিংসা রুখতে ধর্নায় বসেছে বিরোধী দল বিজেপি। বাকি জায়গার পাশাপাশি এই অশান্তি অব্যাহত শীতলকুচিতেও। চতুর্থ দফার নির্বাচনে রাজনৈতিক হিংসার কারণে খবরের শিরোনামে এসেছিল শীতলকুচি। এবার সেই শীতকুচির ভিডিয়ো ভাইরাল করে তুমুল বিতর্কের মুখে রাজ্য বিজেপি।

ভোটের ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর থেকে পুনরায় তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল শীতলকুচি। চলছিল ভাঙচুর, গোলাগুলি। এই অশান্তিতে গুলিবিদ্ধ হন মানিক মৈত্র নামে এক যুবক। হাসপাতালে নিয়ে গেলে পরে মৃত্যু হয় তাঁর। এই ঘটনার একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। বিজেপি কর্মীরাই শেয়ার করেছিলেন। রাজ্য বিজেপির ফেসবুক পেজ থেকে ভিডিয়োটি শেয়ার করে লেখা হয়েছে, ‘মমতার খুনের খেলা’। এই ভিডিয়োটি দেখে রীতিমতো অবাক হয়ে যান এক সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধি। কারণ শীতলকুচির ঘটনায় মৃত হিসেবে যাকে দেখানো হচ্ছে সেটা তাঁর ছবি। এই জীবিত সংবাদকর্মীর ছবি নিয়ে মৃত শীতলকুচি বাসিন্দা হিসেবে ভাইরাল করা হয়েছে বিজেপির তরফ থেকে।

এই ঘটনা নজরে আসতেই তা নিয়ে টুইটারে মুখ খোলেন সাংবাদিক অভ্র ব্যানার্জি। তিনি এই ভিডিওটি শেয়ার করে লেখেন, ‘আমি অভ্র ব্যানার্জি। আমি জীবিত এবং সুস্থ আছি। শীতলকুচি থেকে কমপক্ষে ১,৩০০ কিলোমিটার দূরে রয়েছি। বিজেপির আইটি সেল বলছে আমি মৈনাক মিত্র। আমি শীতলকুচিতে মারা গিয়েছি। এই মিথ্যে খবর দয়া করে বিশ্বাস করবেন না। আবারও বলছি আমি বেঁচে আছি।’ টুইটারে সাংবাদিকের এই স্বীকারোক্তি সামনে আসার পরে কার্যত শোরগোল পড়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। চাপের মুখে পড়ে ভুল স্বীকার করেছে বিজেপি। একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে বিজেপির তরফ থেকে। তাতে বলা হয়েছে, অভ্র ব্যানার্জির ছবিটি ভুলবশত এই ভিডিয়োতে ঢুকিয়ে ফেলা হয়েছে। তবে শীতলকুচিতে মানিক মৈত্র নামে এক ব্যক্তি তৃণমূলের গুলিতেই মারা গিয়েছেন বলেও দাবি করেছে গেরুয়া শিবির।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here