kolkata bengali news

ডেস্ক: ফিরেও যেন ফেরা হল না ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কম্যান্ডর অভিনন্দন বর্তমানের। পাক ভূমিতে দু’দিন বন্দিদশা কাটিয়ে দেশে ফিরেই দ্রুত কাজে ফিরতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু আপাতত তাঁর এই ইচ্ছাপূরণ এখনই হচ্ছে না। এখনই কাজে ফিরতে পারবেন না অভিনন্দন। আপাতত বায়ুসেনার তরফ থেকে তাঁকে প্রায় ৩ সপ্তাহের ছুটিতে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

বৃহস্পতিবার অভিনন্দনের ডিব্রিফিং বা প্রশ্নোত্তর পর্ব শেষ হয়েছে। পাক হেফাজতে থাকাকালীন তাঁর অবস্থান কী ছিল সেই সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। এর পাশাপাশি দেশের সুরক্ষাজনিত কোনও সংবেদনশীল তথ্য পাক সেনাদের হাতে পড়েছে কিনা সে বিষয়েও তাঁর কাছকে পুঙ্খানপুঙ্খ বিবরণ চাওয়া হয়। এর আগে ডিব্রিফিংয়ের সময়ে অভিনন্দন জানান যে, পাকিস্তান তাঁকে শারীরিকভাবে নয় মানসিকভাবে নির্যাতন করেছে। এছাড়া তাঁকে নাকি একা একটি সেলে পৃথকভাবে রাখা হয়েছিল। এখানেই শেষ নয়, তাঁকে পাক সেনার প্রশংসা করার জন্য চাপ অবধি দিয়েছিল পাকিস্তান। তাঁর শারীরিক পরীক্ষায় পাঁজরে ও চোখে আঘাতের চিহ্ন মিলেছে।

 

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি পাক বিমান হানা রুখতে গিয়ে পাকিস্তানের মাটিতে ভেঙে পরে ভারতের মিগ-২১ যুদ্ধবিমান। পাক সেনার হাতে বন্দি হন উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। যদিও ভারত তথা আন্তর্জাতিক চাপে পরে ইমরান খান জানান, শুক্রবার প্রত্যার্পণ করা হবে ভারতীয় উইং কম্যান্ডারকে। সেদিন ভারতীয় মিগ-২১ ভেঙে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই স্থানীয় গ্রামবাসীরা ঘটনাস্থলে ছুটে যান ও তাঁকে উদ্ধার করেন। ভারতীয় উইং কম্যান্ডার তাদের কাছে জানতে চান তিনি কি ভারতে। গ্রামবাসীরা সম্মতি জানানোয়, তিনি দেশাত্মবোধক স্লোগান দেন। এরপরেই আসল কথা জানায় পাক গ্রামবাসী। বিপদ বুঝে সঙ্গে সঙ্গে নিজের সঙ্গে রাখা কিছু গোপনীয় নথি মুখে পুড়ে নেন অভিনন্দন। পাশাপাশি, আক্রমণাত্মক গ্রামবাসীদের হাত থেকে বাঁচার জন্য শূন্যে গুলিও ছোঁড়েন তিনি। পাল্টা পাথর ছোড়ে গ্রামবাসীরা। শেষ পর্যন্ত পাক সেনা সেখানে পৌঁছে আটক করে অভিনন্দন বর্তমানকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here