amit saha bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক:  গোধরাকাণ্ডর জন্য দীর্ঘদিন আজকের প্রধানমন্ত্রী, সেদিনের গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল আমেরিকা৷ এবার কী মোদী বন্ধু ট্রাম্প প্রশাসন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর বিরুদ্ধে একই রকম নীতি নেবে? ধর্মীয় স্বাধীনতা সংক্রান্ত মার্কিন কমিশন(ইউএসসিআইআরএফ) এর সাম্প্রতিক বক্তব্য তেমনটাই স্পষ্ট ইঙ্গিত দিচ্ছে৷ এই কমিশনের সাফ কথা, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে এসে এক ভুল দিকে যাচ্ছে ভারত সরকার। পাশপাশি এই বিলটি অত্যন্ত বিপজ্জনক বলে কমিশনের সাফ দাবি,নাগরিক সংশোধনী বিল(ক্যাব) বিল পাশ হলে অমিত শাহের ওপরে নিষেধাজ্ঞা জারি হোক।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সোমবার মধ্যরাতে লোকসভায় নাগরিক সংশোধনী বিল (ক্যাব) ২০১৯ ভোটাভুটিতে ৩১১- ৮০ ব্যবধানে পাশ করিয়ে নিয়েছেন৷ বিরোধীদের আক্ষেপ, মধ্যরাতে স্বাধীনতা পেয়েছিলাম, আজ সেই মধ্যরাতে নতুন করে পরাধীন হলাম৷ যদিও শাহর বাণী, কাল সোনালি সূর্য উঠবে৷ প্রস্তাবিত নাগরিকত্ব বিলে বলা হয়েছে, পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান থেকে হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মানুষ যদি ধর্মীয় নিপীড়নের ভয়ে পালিয়ে আসেন, তবে তাঁদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত যাঁরা এদেশে এসেছেন, তাঁরাই নাগরিকত্ব পাওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

ভারতীয় মুসলিমদের সঙ্গে ক্যাবের কোনো সম্পর্কই নেই বলে লোকসভায় দাঁড়িয়ে স্পষ্ট জানান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ তাঁর অভয়, ভারতীয় মুসলিমদের তাড়িয়ে দেবে না মোদী সরকার৷পাশপাশি তাঁর সাফ দাবি দেশের মানুষ এই বিলটিকে মেনে নিয়েছেন৷ তংআর কথায়, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে নীপিড়িত হিন্দু, শিখ, খ্রিশ্চান, বৌদ্ধ, পার্শি ও জৈন সম্প্রদায়ের শরণার্থীদের কোনো পরিচয় পত্র ছাড়াই ভারতে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে৷ তবে মার্কিন ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক কমিশন ইউএসসিআইআরএফ স্পষ্ট জানিয়েছে, এমন বিল পাশ হলে ভারতের চিরাচরিত ধর্ম নিরপেক্ষতার ছবিটা ধ্বংস হয়ে যাবে৷ সেই সহ্গে সেদেশর মুসলিমরা বিপাকে পড়বেন৷ আর তাই গোধরার মতোই ক্যাব পাশ হলে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার জেরে পড়বেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here