ডেস্ক: গুজরাত বিধানসভা নির্বাচনে মোদী বাহিনীর সামনে বুক চিতিয়ে দাঁড়িয়ে বিজেপির ঘুম ছুটিয়েছিল তিন দলিত যুবক হার্দিক, অল্পেশ এবং জিগনেস। ভোটে জিতে গুজরাতে বিজেপি সরকার গঠন করলেও এই তিন মুর্তির একতা যে বিজেপির মনে ভয়ের কাঁটা ফুটিয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। আসন্ন মধ্যপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে মোদী প্রাসাদে ঘুণ ধরাতে ফের তাঁরা তৈরি বলে জানালেন পতিদার নেতা হার্দিক প্যাটেল।

সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশের সাগর জেলার গারাকোটায় এক অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে হার্দিক বলেন, ‘পিছিয়ে পড়া সম্প্রয়দায়ের জন্য এক অনুষ্ঠানে এখানে এসেছি আমি। সমাজটাকে ভাঙার জন্য উঠে পড়ে লাগা ফ্যাসিবাদী সংগঠনগুলির বিরুদ্ধেই আমার লড়াই। এই শক্তিগুলি সংবিধানের মৌলিক্তাকে নষ্ট করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে, কংগ্রেস যদি আমাদের সমর্থন চায় তবে আমরা সমর্থন দেব। এবং আমি, জিগনেশ মেবানি, ওবিসি নেতা অল্পেশ ঠাকুর তিন জন গুজরাতের ধাঁচে একযোগে মধ্যপ্রদেশে লড়াইতে নামব।

একইসঙ্গে ওই সভায় মধ্যপ্রদেশের বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানকেও একহাত নিতে ছাড়েননি হার্দিক। তাঁর কথায়, নর্মদা সংরক্ষণ কর্মসূচিতে যে কেলেঙ্কারি হয়েছে তা যাতে ফাঁস হয়ে যায়, সেই ভয়েই বিজেপির কয়েকজন ধর্মগুরুকে খুশি করতে তাঁদের রাষ্ট্রমন্ত্রীর মর্যাদা দিয়েছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। একইসঙ্গে তাঁর অভিযোগ, দুর্নীতিতে ভরে গিয়েছে এই সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here