kolkata bengali news

ডেস্ক: জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী তকমা দেওয়ার ব্যপারে রাষ্ট্রপুঞ্জের দ্বারস্থ হয়েছে ভারত। এই সিদ্ধান্তে সবসময়ে পাশে পেয়েছে আমেরিকা, ব্রিটেন এবং ফ্রান্সের মতো দেশকে। কিন্তু রাষ্ট্রপুঞ্জে বারবার ভেটো এনে সেই প্রস্তাব পাশ করতে দেয়নি বন্ধু চিন। এবার এই বিষয় নিয়ে চিনের কাছে দুটি শর্ত রাখল পাকিস্তান। যা কিনা কার্যকর হলেই মাসুদকে আন্তর্জাতিক তকমা দিতে পাকিস্তান কোনও আপত্তি করবে না।

প্রথম শর্তটি হল ভারত সীমান্ত থেকে সেনার সংখ্যা কমিয়ে নিতে হবে। দ্বিতীয়ত, কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ইসলামাবাদের সঙ্গে ভারতকে দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় বসতে হবে। এমনিতেই বিশিষ্ট মহলের দাবি, চিনের পক্ষে আর বেশিদিন মাসুদকে বাঁচানো সম্ভব হবে না। কারণ ইতিমধ্যেই মাসুদকে কালো তালিকাভুক্ত করার ব্যপারে বারবার ‘বাধা’ হয়ে দাঁড়িয়েছে বন্ধু চিন। যার ফলে বহু দেশ এখন চিনকে একঘরে করতে ধিরে ধিরে উদ্যোগী হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে। ফলে কার্যত পাকিস্তানের পাশাপাশি চিনও যে মাসুদের জন্য চাপের মুখে রয়েছে তা বলাই বাহুল্য। এছাড়া, নিরাপত্তা পরিষদে মাসুদকে নিয়ে প্রস্তাব পাশ না করাতে পেরে আমেরিকা এবার রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ অধিবেশনে বিষয়টি তুলতে পারে বলেও জানা যাচ্ছে।

 

অন্যদিকে ট্রাম্প প্রশাসন পাকিস্তানের এই শর্তগুলিকে মোটেই ভালো চোখে দেখতে পারেনি। তাঁদের বক্তব্য জঙ্গি মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক তকমা দেওয়া এবং দ্বিপাক্ষিক আলোচনা সম্পূর্ণ আলাদা বিষয়। এর আগে চিন নিরাপত্তা পরিসদের সদস্যদের জানিয়েছিল যে, কয়েকটি বিশেষ কারণে নাকি মাসুদকে সন্ত্রাসবাদী তকমা দেওয়ার ব্যপারে সায় দিতে পারছে না। তখন আমেরিকা, ফ্রান্স এবং ব্রিটেনের মতোই নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা চিনকে নির্দেশ দিয়েছে যে ঠিক কি কারণে তাঁদের এত আপত্তি তা যেন আগামী দু’সপ্তাহের মধ্যে যেন স্পষ্ট করে দেয়। উল্লেখ্য, ব্রিটেন ও ফ্রান্সকে সঙ্গে নিয়ে আমেরিকার তরফে রাষ্ট্র সংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্য দেশের কাছে একটা প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। যেখানে জইশ-ই-মহম্মদ নেতা মাসুদ আজহারের ওপর অস্ত্রের নিষেধাজ্ঞা, ভ্রমণে বাধা এবং সম্পত্তি আটকের মতো প্রস্তাব রাখা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here