গর্ভপাতের কারণে ছুটির চাওয়ায় চাকরি থেকে বরখাস্ত অন্তঃসত্ত্বা, দায়ের হল মামলা

0
kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করল ইন্ডিয়ান ইনস্টিউট অফ ম্যানেজমেন্টের কলকাতার শাখা। জানা গিয়েছে, গর্ভবতী অবস্থায় গুরুতরভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ায় অফিসে ছুটির আবেদন করেছিলেন তিনি, কিন্তু সেই আবেদন খারিজ করে দেয় আইআইএম কর্তৃপক্ষ। শুধুমাত্র তাতেই ক্ষান্ত হয়নি কর্তৃপক্ষ বরং তাঁকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করে দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত কিছুদিন আগেই চুক্তি ভিত্তিক গবেষক হিসাবে আইআইএম কলকাতায় যোগ দিয়েছিলেন ওই মহিলা।

সূত্রের খবর, গর্ভবতী ওই মহিলার শারিরীক অবস্থার অবনতির কারণে চিকিৎসক তাঁকে বলেন গর্ভপাত করাতে এবং সম্পূর্ন বিশ্রামে থাকতে। ডাক্তারের পরামর্শ মতোই তিনি অফিস কর্তৃপক্ষের কাছে ছুটির আবেদন করায় তাঁকে চাকরি খোয়াতে হয়। অসহায় অবস্থায় ওই গর্ভবতী মহিলা বহু জায়গায় আবেদন নিবেদ করেও কোন সুরাহা না মেলায় অবেশেষে তিনি দারস্থ হন কলকাতা হাইকোর্টের।

সম্প্রতি মামলাটি হাইকোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহার এজলাসে ওঠে। আদালতে বিষয়টি এই মুহুর্তে বিচারাধীন। কোর্টের তরফে দু’পক্ষকেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে হলফনামা লিখিত আকারে জমা দিতে। অন্যদিকে, আই আই এম এর তরফে আদালতকে জানান হয়, ওই চাকুরিজীবী বিনা নোটিশে টানা ছুটি নিয়েছিলেন। পাশাপাশি বন্ধ ছিল তার মোবাইল ফোন। তাকে ফোনে না পেয়েই এমন সিন্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। তরুণীর পাল্টা প্রতিক্রিয়া, গত নভেম্বর মাসে চুক্তি ভিত্তিতে আইআইএম এর কর্মী হিসাবে যোগদান করেন তিনি। তারপর থেকেই গবেষক তরুণীর উপর নানা ধরেনের মানসিক অত্যাচার শুরু করে কর্তৃপক্ষ। এবার বাড়াবাড়ির চরম সীমায় পৌঁছায় কর্তৃপক্ষ। বিনা নোটিশেই তাকে বরখাস্ত করে কর্তৃপক্ষ। গর্ভবতী তরুণীর বয়ান অনুযায়ী, চিকিৎসকের যাবতীয় লিখিত পরামর্শের কাগজ অফিসে পেশ করেও কোন লাভ হয়নি। ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েও কোন লাভ হয়নি। সব কিছু জেনে তাঁকে চাকরি থেকে তাড়ানোর জন্য উঠেপড়ে লাগে কর্তৃপক্ষ।

এবিষয়ে হাইকোর্টের এক আইনজীবীর কথায়, কোন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানই মাতৃত্বকালীন ছুটি কেড়ে নিতে পারে না। কর্মীদের অন্যান্য ছুটির মতোই এই ছুটি বিধিবদ্ধ। মাতৃত্বকালীন ছুটি হিসাবে গর্ভপাতকেও ধরা হয়। আইন অনুযায়ী বেতন সহ সেই ছুটি ধার্য করা হয়ে থাকে। তিনি আরও বলেন, চুক্তি ভিত্তিক কর্মীরা এক্ষেত্রে বাকিদের মতোই সুবিধা ভোগ করবেন। যদিও এ বিষয়ে নিয়ে এখনও অবধি মুখ খোলেনি আইআইএম এর আইনজীবী।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here