news bengali

মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা ভাইরাসের দাওয়াই খুঁজতে রাত-দিন এক করে লেগে করেছে গবেষকরা। পাল্লা দিয়ে চলছে এই ভাইরাস ধরার নানা যন্ত্রপাতি আবিষ্কার। করোনার গঠন একেবারে নতুন হওয়ায় এই ভাইরাস ধরতে নতুন করে কিট বানাতে হচ্ছে। ইতিমধ্যেই একাধিক ভারতীয় সংস্থা করোনা ধরার কিট সাফল্যের সঙ্গে আবিষ্কার করেছে। তবে আইআইটি রুরকির এক অধ্যাপক যা করে দেখিয়েছেন তা এতদিন ছিল কল্পনাতীত। তিনি একটি সফটওয়ার তৈরি করেছেন বলে দাবি। এর মাধ্যমে সন্দেহভাজন রোগীর এক্স-রে করার পাঁচ সেকেন্ডের মধ্যে বলে দেওয়া যাবে সে করোনা পজিটিভ কিনা।

সূত্রের খবর, সফটওয়ার তৈরি করা এই অধ্যাপকের নাম কমল জৈন। তিনি আপাতত এই সফটওয়ারের পেটেন্টের আবেদন জানিয়েছেন। একই সঙ্গে এর সমীক্ষার জন্য আইসিএমআর-এরও দ্বারস্থ হয়েছেন। তাঁর সফটওয়ার আদৌ কার্যকর কিনা সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে আইসিএমআর-কেই। এই সফটওয়ার যদি সঠিকভাবে কাজ করতে শুরু করে তবে ভারতে করোনা চিকিৎসার নতুন দিগন্ত খুলে যাবে, সন্দেহ নেই। অধ্যাপকের দাবি, এই সফটওয়ারের মাধ্যমে কেবল খরচ কমে যাবে এমনটা নয়। চিকিৎসা কর্মীদেরও যেহেতু রোগীর সংস্পর্শে আসতে হবে না তাই সংক্রমণের সম্ভাবনাও কমে যাবে বলে জানান তিনি।

নিজের আবিষ্কার সম্পর্কে অধ্যাপক জৈন জানান, ‘আমি কোভিড ১৯, নিমোনিয়া, এবং ইনফ্লুয়েঞ্জার রোগীদের এক্স-রে সহ প্রায় ৬০ হাজার এক্স-রে বিশ্লেষণ করি। এরপর আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স (কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা)-কে কাজে লাগিয়ে ডেটাবেস তৈরি করে এই তিনটি রোগের ফলে বুকে হওয়া ‘কনজেশন’-র পার্থক্য বের করে ফেলি।’ শুধু তাই নয়, গবেষণার কারণে আমেরিকার ‘এনআইএইচ’ রিসার্চ সেন্টারে যতরকমের বুকের এক্স-রে ডেটাবেস ছিল তাও খতিয়ে দেখেন তিনি। এরপরই এই সফটওয়ার তৈরির কাজে মন দেন।

কীভাবে কাজ করবে এই সফটওয়ার? কমল জৈনের দাবি, চিকিৎসকরা কোনও রোগীর বুকের এক্স-রে তুলে তা আমার সফটওয়ারে আপলোড করতে পারবেন। এক্স রে আপলোড হলেই তা বলে দেবে রোগীর ছাতিতে কী কী ধরনের সংক্রমণ রয়েছে। ‘কনজেশন’ কোভিড ১৯-র কারণে হচ্ছে নাকি অন্য কোনও কারণে সেটাও বলে দেবে এই সফটওয়ার। আর পুরোটাই হবে মাত্র ৫ সেকেন্ডের মধ্যে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here