মেডিক্যাল কলেজে চলছিল ঘুষের কারবার, হঠাৎ হরিজন হানায় বন্ধ নিয়োগ

0
337
kolkta bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, কোচবিহার: কোচবিহার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ডোম পদে নিয়োগের দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখালেন হরিজন সম্প্রদায়ের মানুষ। এদিন তারা এই পদে ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া আটকে দিয়ে কোচবিহার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে এম এস ভি পি ঘরের সামনে বিক্ষোভ দেখায়। তাদের অভিযোগ এই ইন্টারভিউয়ে কোচবিহারের স্থানীয় হরিজরণ বস্তির একাধিক যুবক আবেদন করলেও তাদের কাউকেই ইন্টারভিউয়ে ডাকা হয়নি। তাদের নামের লিস্ট না আনা পর্যন্ত তারা কোন রকম ইন্টারভিউ করতে দেবেনা। এই দাবীকে সামনে রেখে সকাল থেকে তারা বিক্ষোভে নামে। কোচবিহার সরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সুপারের ভূমিকা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করে। নিয়োগ নিয়ে উঠেছে দুর্নীতির অভিযোগ। তাদের বক্তব্য এখানে পয়সার বিনিময়ে নিয়োগ করার চেষ্টা হচ্ছে।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে কোচবিহার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের সুপার ডাক্তার রাজীব প্রসাদ বলেন, এই অভিযোগ ভিত্তিহীন। তিনি বলেন, সমস্ত বিষয় নিয়ম মাফিক হচ্ছে। এখানে আমাদের কোনো ভূমিকা নেই। বিষয়টি নিয়ে কোচবিহার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডাক্তার সুকুমার বসাক বলেন, সমস্ত সরকারি নিয়ম মেনে নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। তবে কোচবিহার হরিজন সম্প্রদায়ের আন্দোলনের জেরে এদিন ইন্টারভিউ বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি স্বাস্থ্য ভবনে পাঠানো হয়েছে তারপর সেখান থেকে যেভাবে নির্দেশ আসবে সেই ভাবে কাজ করা হবে বলে জানানো হয়েছে কর্তৃপক্ষ থেকে। এই বিষয় নিয়ে সরব হয়েছে বিজেপিও। কোচবিহার জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক অভিজিৎ বর্মন বলেন, এই হাসপাতাল থেকেই সার্টিফিকেট নিয়ে আবেদন করার পরও ইন্টারভিউয়ে নাম আসেনি কোচবিহারের হরিজন সম্প্রদায়ের মানুষের। তাই আমরা চাই ইন্টারভিউটি বাতিল করে পুনরায় এখানকার মানুষের নাম দিয়ে ইন্টারভিউ করা হোক। মনে হচ্ছে দুর্নীতি করে এই নিয়োগ করার প্রক্রিয়া চলছে।

প্রসঙ্গত, কোচবিহার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ডোম পদে ৮ জন কর্মী নিয়োগ নিয়ে একটি বিজ্ঞাপণ বেরিয়েছিল। সেই অনুযায়ী কোচবিহার সহ অন্যান্য জেলা থেকে প্রার্থীরা আবেদন করার পর ৫৬ জনের নাম ইন্টারভিউয়ের জন্য নিরবাচিত করা হয়। সোমবার ছিল ইন্টারভিউয়ের তারিখ তবে ৫৬ জনের মধ্যে কোচবিহার হরিজন সম্প্রদায়ের এক জনের নাম না থাকায় ইন্টারভিউ বাতিল করার দাবিতে ও স্থানীয় হরিজনদের সেই তালিকাতে ঢোকানোর দাবিতে বিক্ষোভ দেখায় ওরিয়ন সম্প্রদায়ের মানুষ। তাদের অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে এই হাসপাতালেই কাজ করার পরেও এখান থেকে সার্টিফিকেট দিয়ে আবেদন করার সত্ত্বেও তাদের নাম আসেনি। দুর্নীতি চলছে। স্থানীয় লোকজনের নাম রাখতে হবে পাশাপাশি তাদের নিয়োগ করতে হবে ও ইন্টারভিউ করতে দেওয়া হবে। সারাদিন ধরে বিক্ষোভ চলার পর শেষে কোচবিহার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ইন্টারভিউ বাতিল হয়। নর্থ বেঙ্গল বাসফোর হরিজন ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন সদস্য গৌতম বাসফোর বলেন, কোচবিহার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ডোম নিয়োগ নিয়ে কোচবিহারে কারো নাম না থাকায় সংগঠনের পক্ষ থেকে আন্দলনে   নেমে স্থানীয় হরিজন ভাইদের নাম দেওয়ার সাথে সাথে স্থানীয় লোকজনকে নিয়োগ করার দাবিতে একটি স্মারকলিপি অধ্যক্ষ ও সুপারকে জমা দেওয়া হয়েছে। হাস্নপাতালের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আপাতত প্রক্রিয়া বাতিল। আগামী পদক্ষেপের বিষয়ে সকলকে জানানো হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here