মহানগর ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোন করে কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেছেন। ইসলামাবাদের পক্ষ থেকে একটি প্রেস রিলিজে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। এই সংবাদে কপালে ভাঁজ পড়েছে আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। পূর্ব লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় চিনের সঙ্গে ভারতের উত্তেজনার পর ভারতীয় উপমহাদেশে যে নতুন সমীকরণ তৈরি হচ্ছে তার প্রেক্ষিতে ইসলামাবাদ ও ঢাকা’র মধ্যে এই আলোচনা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

ভারতকে কোণঠাসা করার জন্য চিন ভারতের প্রতিবেশীদের ওপর প্রভাব বিস্তার করার নীতি নিয়েছে। জঙ্গিদের মদত দেওয়ার প্রসঙ্গে আমেরিকার সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পর্ক খারাপ হওয়ার পর থেকেই ইসলামাবাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক তৈরি করতে বেজিং অতি সক্রিয় হয়ে উঠেছে আগে থেকেই। এরই মধ্যে নেপালের সঙ্গে চিনের হৃদ্যতা বাড়ার ফলে কাঠমাণ্ডুর বেশকিছু পদক্ষেপ ভারত–নেপালের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে ফাটল ধরিয়েছে। সম্প্রতি বাংলাদেশেও চিন সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এই সময়ে ইমরান–হাসিনা’র ফোনালাপে কাশ্মীর প্রসঙ্গের উল্লেখে নয় দিল্লি যথেষ্ট অস্বস্তিতে পড়বে এটাই স্বাভাবিক।

যদিই এই ফোনের কথোপকথনের বিষয়ে ঢাকা থেকে যে সংক্ষিপ্ত বিবরণ প্রকাশিত হয়েছে তার মধ্যে কাশ্মীরের কোনও উল্লেখ নেই। দু’দেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে করোনাভাইরাস ও বাংলাদেশের বন্যা নিয়ে আলোচনা হয়েছে, এমনটাই জানানো হয়েছে দুটি অনুচ্ছেদের বিবরণে। কিন্তু ইদানীংকালে বাংলাদেশের তরফে ভারতের সঙ্গে গভীর সম্পর্ক যে সামান্য হলেও ফিকে হতে শুরু করেছে তার কিছু আভাস ইতিমধ্যেই পেতে শুরু করেছে বিদেশ মন্ত্রক। ইসলামাবাদ ও ঢাকার মধ্যে এই ফোনালাপে চিনের ভূমিকার কথাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। যদিও আলোচনায় কাশ্মীর প্রসঙ্গ উত্থাপনের বিষয়ে দুই দেশের দু’রকম বয়ানেই বেশি চিন্তিত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষরা।

পাকিস্তানের আট অনুচ্ছেদের প্রেস রিলিজে বলা হয়েছে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কাশ্মীরের প্রেক্ষাপট বিষয়ে পাকিস্তানের বক্তব্য জানিয়ে বিষয়টির একটি শান্তিপূর্ণ সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়ার বিষয়ে জোর দেন। অবশ্য ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব সাংবাদিকেদের সঙ্গে মিলিত হয়ে বলেন, ”বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ঐতিহাসিক এবং সময়ের মধ্যে দিয়ে পরীক্ষিত। বাংলাদেশ প্রথম থেকেই জানিয়ে আসছে জম্মু ও কাশ্মীর  ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তাদের এই অবস্থান ভারতের দিক থেকে সবসময়ই প্রশংসিত হয়েছে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here