imran khan kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তানের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্কের কথাই ফের সামনে আনলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তাঁর কথায়, আমেরিকায় ৯/১১-র হামলার পরেই আমেরিকার সঙ্গ দেওয়া উচিত হয়নি পাকিস্তানের। পূর্ববর্তী মুশারফ সরকারকে দায়ী করে তিনি জানান, যে প্রতিশ্রুতি তারা রাখতে পারবেন না, তা দেওয়া উচিত হয়নি। তৎকালীন পাকিস্তানের শাসক জেনারেল পারভেজ মুশারফের আমেরিকার পাশে থাকার সিদ্ধান্তের কথাই সোমবার বললেন ইমরান।পাশাপাশি তালিবানদের জঙ্গি না বলে জিহাদি বললেন ইমরান খান৷ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর ভাষায়, পরিস্থিতি জিহাদিদের জঙ্গি করেছে৷ তংআর সোজা কথা, জিহাদি আর জঙ্গি এক নয়৷ সেই সঙ্গে আমেরিকায় দাঁডিয়েই তিনি আফগান নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনকে কোনো সাহায্য না করার স্পষ্ট ইঙ্গিত দিলেন৷ অবশ্য তিনি যাবতীয় দোষ তাঁর পূর্ববর্তী সরকারগুলির ওপরেই চাপালেন৷

২০০১ সালে আফগানিস্তানে আমেরিকার হস্তক্ষেপের আগে পাকিস্তান-সহ তিনটি দেশ সেখানকার তালিবান সরকারকে মর্যাদা দিয়েছিল। আর আমেরিকায় ৯/১১-র হামলার পরে পাকিস্তান তালিবানের বিরুদ্ধে আমেরিকার বাহিনীকে সমর্থন করেছিল। ১৯৮০-র দশকে যখন সোভিয়েত আফগানিস্তানে হস্তক্ষেপ করে৷ সেই সময় পাকিস্তান আমেরিকাকে সাহায্য করেছিল। সোভিয়েতের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতেও সাহায্য করেছিল। পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই বিভিন্ন মুসলিম দেশ থাকা আসা যুবকদের জঙ্গি প্রশিক্ষণ দিয়েছিল তৎকালীন সোভিয়েতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে। এদিন একথা মেনে নিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷

 

ইমরান খান উল্লেখ করে বলেন, জঙ্গি সংগঠন তারাই তৈরি করেছিলেন, সোভিয়েতের বিরুদ্ধে লড়াই করতে। সেই সময় জিহাদিরা ছিল হিরো। ১৯৮৯ সালে সোভিয়েত আফগানিস্তান ছেড়ে চলে যায়। আর আমেরিকাও আফগানিস্তান ছাড়ে। আর পাকিস্তান পড়ে থাকে সেই জঙ্গি গোষ্ঠীগুলির সঙ্গে। এরপর আসে ৯/১১-র হামলা। সেই সময় জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পাকিস্তান আমেরিকার সঙ্গে যোগ দেয়। এখন সেই জঙ্গিদের নিয়েই চলতে হচ্ছে পাকিস্তানকে। পাকিস্তানের উচিত ছিল সেই সময় নিরপেক্ষ থাকা। ইমরান বলেন, সেনা দিয়ে আফগানিস্তান সমস্যার সমাধান হতে পারে না। তিনি আরও বলেন ডোনাল্ড ট্রাম্পকে তিনি অনুরোধ করবেন শান্তি আলোচনা শুরু করতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here