kolkata bengali news

ডেস্ক: শেষ কয়েক বছরে সত্যিই করুণ দশা পাকিস্তান ক্রিকেটের। শেষ বারো মাসে আফগানিস্থান, জিম্বাবোয়ে ও হংকংয়ের মতো ‘লিলিপুট’ দলের বিরুদ্ধেই জয় পেয়েছে একদা বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী ক্রিকেট দল। বিশ্বকাপের আগে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধেও সিরিজ খোয়াতে হয়েছে তাঁদের। একদিনের বিশ্বকাপের আগে কোনও দলের কাছেই এটা সুখবর নয়। এহেন পরিস্থিতিতে পাক ক্রিকেটের হাল ফেরাতে এবার আসরে নামলেন সেদেশের প্রধানমন্ত্রী তথা প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ক ইমরান খান। পাক ক্রিকেট বোর্ডের কাছে তাঁর সাফ নির্দেশ, তাঁর কথা শুনেই চলতে হবে বোর্ডকে।

শেষ কয়েক বছরে কেন করুণ দশা পাক ক্রিকেটের? সেই রহস্যের কিনারা করতে সম্প্রতি পিসিবি কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন ইমরান খান। কিন্তু কর্তাদের থেকে সদুত্তর না মেলায় নাকি বৈঠকের মাঝেই মেজাজ হারান বিশ্বজয়ী এই অধিনায়ক। কর্তাদের দল চালানোর যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। এর পাশাপাশি, দলের সমস্যা মেটানোর জন্য বেশ কয়েক দফা প্রস্তাব দেন তিনি। আগামী দিনে সেই প্রস্তাব মেনেই যে পিসিবি কর্তাদের চলতে হবে, তাও ভালো ভাবে বুঝিয়ে দেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

 

পাকিস্তানের এই ব্যর্থতার অন্যতম কারণ হিসেবে প্রতিভাবান ক্রিকেটারদের দলে কম সুযোগ দেওয়াকেও অনেক ক্রিকেট বিশেষজ্ঞই দায়ী করেন। পাক জাতীয় দলে নির্বাচনের ক্ষেত্রে যে পক্ষপাতিত্ব হয়, দীর্ঘদিন ধরে তা সকলেরই জানা। এই নিয়ে অনেকেই আগেও সরব হয়েছেন। নির্বাচকরা নাকি তাঁদের পছন্দের খেলোয়াড়দেরই দলে সুযোগ দেন। এই প্রসঙ্গে পিসিবি কর্তাদের প্রশ্ন করেন ইমরান। স্বাভাবিক ভাবেই তা অস্বীকার করেন তারা। এতেই চোটে যান ইমরান। সাফ বলেন, তিনিও ৪০ বছর ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত। তিনি জানেন কোথায় কী হয়। তাঁকে ভুল বোঝানোর চেস্টা না করা হয়। এরপর অবশ্য পিসিবি সভাপতি ইমরানকে আশ্বস্ত করেন যে, প্রধানমন্ত্রীর কথা মতোই সব হবে। এরপরেই শান্ত হন ইমরান খান।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here