মহানগর ওয়েবডেস্ক: ‘গোটা বিশ্বে দরজায় দরজায় ঘুরে কার্টুন স্রষ্টাদের জন্য ভালো উপাদান তৈরি করে দিচ্ছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।’ জম্মু-কাশ্মীর ইস্যুতে রাষ্ট্রসংঘে ভারতকে বেনজির আক্রমণের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এই ভাষাতেই পাল্টা দিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। এদিন মুম্বইয়ে নৌসেনার নতুন সাবমেরিন আইএনএস খাণ্ডেরির উদ্বোধন করেই হুঙ্কার দেন তিনি। একই সঙ্গে জানান, বেশ কিছু অশুভ শক্তি ২৬/১১ কায়দায় জলের পথে ভারতে হামলা চালানোর চেষ্টা করছে। কিন্তু, তাদের এই অপচেষ্টা সফল হবে না বলেই আত্মবিশ্বাসী সুরে জানিয়েছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী।

এদিন রাজনাথ সিং বলেন, ‘পাকিস্তানকে এটা বুঝতে হবে যে আইএনএস খাণ্ডেরি আসার পর ভারতীয় নৌসেনা অনেক বেশি শক্তিশালি হয়ে গিয়েছে, এবং আমাদে সরকারও সশস্ত্র সেনাবাহিনীকে অত্যাধুনিক করে তুলতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’ যে কেউ ভারতীয় উপকূল বা ভারতের অন্দরে কোনও রকমের হামলার চেষ্টা করবে তাদের আরও কড়া ভাষায় জবাবও দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

আমেরিকার হিউস্টনে অনুষ্ঠিত ‘হাউডি মোদী’র কথাও উঠে আসে রাজনাথের ভাষণে। এই ধরনের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিতি এবং অভ্যর্থনাই বলে দেয়, যে পরবর্তী ‘সুপার পাওয়ার’ দেশ হওয়ার দিকে এগোচ্ছে ভারত। অভিমত কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর। তাঁর ব্যাখ্যা, ‘আমরা দেখলাম কীভাবে প্রধানমন্ত্রীকে ভারতীয়দের ঠাসা স্টেডিয়ামে স্বাগত জানানো হয়েছিল। এমনকী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও আমাদের সরকারের ক্ষমতার কথা স্বীকার করেছেন।’

রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভার মঞ্চে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নিজের ভাষণের সিংহভাগ ভারত ও কাশ্মীর নিয়ে খরচ করেছেন। অন্যদিকে নরেন্দ্র মোদী পাকিস্তানকে গুরুত্ব না দিয়ে এক বারও সেদেশের নামই মুখে আনেননি। বরং বাকি দেশগুলিকে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আরও এককাট্টা হয়ে লড়ার ডাক দিয়েছেন। এই নিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে রাজনাথ বলেন, ‘একদিকে আমরা যখন জম্মু কাশ্মীর নিয়ে ইতিবাচক পদক্ষেপ নিচ্ছি এবং গোটা বিশ্বের সমর্থন পাচ্ছি, তখন পাক প্রধানমন্ত্রী দরজায় দরজায় ঘুরে কার্টুন নির্মাতাদের জন্য ভালো কন্টেন্ট উপহার দিচ্ছেন।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here