মহানগর ওয়েবডেস্ক: করোনা সংক্রমণ রুখতে চার দফা লকডাউনের শেষে ধাপে ধাপে লকডাউন তোলার প্রক্রিয়া বা ‘আনলক ১’ পর্ব আজ শুরু হয়েছে সোমবার থেকে। বহুদিন ঘরবন্দি থাকার পর আজ পথে নামার সুযোগ পেয়ে শহর কলকাতার পথ মানুষের ভিড় উপচে পড়েছে। এর ফলে সংক্রমণের হার আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

লকডাউন আরও কিছুটা শিথল হওয়ার ফলে সপ্তাহের প্রথম দিনেই কলকাতায় দেখা গেল মানুষের ঢল। রাস্তায় যানবাহনের তুলনায় যাত্রী সংখ্যা ছিল বেশি। শহরের প্রাণকেন্দ্র ধর্মতলা, শ্যামবাজার, বালিগঞ্জ, হাওড়া ব্রিজ সহ সর্বত্র ছবিটা ছিল প্রায় একই। একই সঙ্গে যানবাহনের আভাবে মানুষকে দূর্ভোগে পড়তে দেখা গেছে উত্তর থেকে দক্ষিণ। আজ শহরে সরকারি বাসের সংখ্যা ছিল বেশি, শুরু হয়েছে ফেরি চলাচলও। যদিও ভাড়া নিয়ে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা না হওয়ায় অধিকাংশ বেসরকারি বাস মিনিবাস রাস্তায় নামেনি। তবে আজ সকাল থেকেই হাওড়া ব্রিজ দিয়ে প্রচুর সংখ্যায় সরকারি বাস ও প্রাইভেট গাড়ি চলতে দেখা গিয়েছে। এছাড়া হাতে গোনা কিছু বেসরকারি বাস, মিনিবাসও যাতায়াত করেছে। অফিস টাইমে যাত্রীদের ভিড় বেশি ছিল ইদানিং কালের মধ্য সব থেকে বেশি। যে সব চালক ছোট গাড়ি নিয়ে রাস্তায় বেরিয়েছেন, তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গিয়েছে, শহরের কোথাও ফাঁকা গাড়ি নিয়ে দাঁড়ালেই একসঙ্গে ৭-৮ জন গাড়িতে উঠার চেষ্টা করছে। যেখানে ২-৩ জনের উঠার কথা। কে গাড়িতে উঠবে কে উঠবে না, তা নিয়ে যাত্রীরা নিজেরাই ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ছেন। সব আসনে যাত্রী নিয়েই বাসগুলি হাওড়া থেকে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। অফিস টাইমে যাত্রীদের ভিড় বেশি ছিল। হাওড়া ময়দান – শিয়ালদহ, হাওড়া ময়দান – বেহালা সহ বিভিন্ন রুটের কিছু বেসরকারি বাস, মিনিবাস এদিন দেখা গিয়েছে। আবার অনেকেই বাসের ভিড় এড়িয়ে সাইকেল নিয়েই হাওড়া ব্রিজ পার হয়েছেন।

তবে বহু যায়গাতেই সামাজিক সুরক্ষা বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মানুশকে ভিড় জমাতে দেখা গেছে।দেশ জুড়ে করোনা সংক্রমণের আবহে এই প্রবণতা যথেষ্ট আশঙ্কাজনক হয়ে উঠছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here