kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঁকুড়া: লকডাউনের জেরে বন্ধ সমস্ত মদের দোকান ও পানশালা। বাড়িতে যেটুকু সঞ্চয় ছিল তা আর ক’দিন চলে। ফলে জেলা জুড়ে চলছে মদের আকাল। রাতে একটু আধটু মদের গ্লাসে চুমুক না দিলে যাদের ঘুম আসে না, তাঁদের এখন হাহাকার অবস্থা। মদের এমন হাহাকারের বাজারে সোমবার রাতে যা ঘটল, তা দেখলে চক্ষু চড়কগাছ হওয়ার জোগাড়। কী হয়েছিল সোমবার রাতে?  রাতের অন্ধকারে চুপিচুপি বাঁকুড়া শহর লাগোয়া ভাদুল গ্রামে থাকা ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টেট বেভারেজেস কর্পোরেশনের ওয়্যার হাউস থেকে পনেরোটি গাড়িতে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ বোঝাই করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল জেলার বিভিন্ন প্রান্তে।

বাঁকুড়া সদর থানার দু’নম্বর ব্লকের ভাদুল গ্রামে অবস্থিত আবগারি দফতরের গোড়াউন থেকে রাতের অন্ধকারে ছোট-বড় মিলিয়ে প্রায় ১৫টি গাড়ি বোঝাই করে বিলিতি মদ নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল জেলার বিভিন্ন প্রান্তে- এমনটাই অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। স্থানীয় মানুষের সন্দেহ হওয়ায় মদ বোঝাই আটটি গাড়ি চলে যেতে সমর্থ হলেও তারা বাকি সাতটি বিলিতি মদ বোঝাই গাড়ি আটক করা হয়। গাড়িগুলির প্রত্যেকটিতেই বোঝাই করা ছিল নামি কোম্পানির বিলিতি মদ। আটক করা হয় গাড়ি চালকদেরও। জিজ্ঞাসাবাদ জানা যায়, তাদেরকে আফগারি দফতরের তরফে লিখিত অনুমতি দেওয়া হয়েছে এই মদ নিয়ে যাওয়ার জন্য। কিন্তু তারা কোনও রকম মদ সরবরাহের সরকারি কাগজ দেখাতে পারেননি। দেশি অবৈধ মদের বাড়বাড়ন্ত যাতে না হয়, সেই কারণে সরকার হোম ডেলিভারি দেওয়ার জন্য মদ সরবরাহ করছে এমনটাই দাবি করেন চালকরা। কিন্তু গাড়িগুলিতে কোনওটা সবজির গাড়ি, কোনওটা অত্যাবশ্যকীয় পণ্য আর কোনওটাতে মেডিসিন দ্রব্যসামগ্রী পরিবহণ করা হয় বলে পোস্টার লাগানো আছে। আর এখানেই দানা বাঁধছে সন্দেহ।

লকডাউনে যেখানে মদ বিক্রি সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ, সেখানে এত বিপুল পরিমাণ মদ কোথায় যাচ্ছিল? উত্তর খুঁজছে পুলিশ। খতিয়ে দেখা হচ্ছে গাড়িগুলির নথিপত্রও। চলছে জিজ্ঞাসাবাদ। যদিও জেলার বিভিন্ন প্রান্তে যারা এই মদ নিয়ে যাচ্ছিলেন, তাঁদের দাবি আবগারি দফতরের বৈধ অনুমতি নিয়েই তাঁরা মদ পরিবহণ করছিলেন।

গাড়িগুলি আটক করে স্থানীয় লোকজন বাঁকুড়া সদর থানায় খবর দেন। পরে সদর থানার পুলিশ গিয়ে চালক-সহ সাতটি বিলিতি মদ বোঝাই গাড়ি আটক করে। স্থানীয়দের অভিযোগ, বাড়তি মুনাফা লাভের জন্য রাতের অন্ধকারে যোগসাজশ করে পাচার হচ্ছিল এই বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here