নিজস্ব প্রতিনিধি: করোনা আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে উত্তর ২৪ পরগনার সঙ্গে প্রায় প্রত্যেক দিনই চলছে কলকাতার। অথচ যত দিন যাচ্ছে ততই কমছে কলকাতায় কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা। কীভাবে তা হতে পারে, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন মহল থেকে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। যদিও পুরমন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিমের দাবি আগের তুলনায় অনেকটাই কমেছে সংক্রমণের সংখ্যা। তার নিরিখেই কমেছে কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা।

প্রায় কয়েক সপ্তাহ ধরে স্বস্তি দিয়ে কমেছে কলকাতায় সংক্রমিত এলাকার সংখ্যা। বর্তমানে কলকাতায় কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা তিনটি। এরমধ্যে রয়েছে ৮৭ নম্বর ওয়ার্ড ও ৯০ নম্বর ওয়ার্ডের দু’টি কমপ্লেক্সে এবং ১২৬ নম্বর ওয়ার্ডের সখেরবাজারের মোড়ে একটি। সংক্রমণ রোধে কলকাতা পুরসভার মাইক্রপ্ল্যানিং যে ভালই কাজ করছে তা বলাই বাহুল্য। এদিকে তা সত্ত্বেও রাজ্যে করোনা সংক্রমণের শীর্ষে রয়েছে কলকাতা। এই অবস্থায় শহরের কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা নিম্নমুখী দেখে বিভিন্ন মহল থেকে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

এ বিষয়ে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিমের দাবি, ‘শেষ তিন মাস প্রতিদিন ৮০০ জন করে সংক্রমিত হচ্ছিল শহরে। কিন্তু বর্তমানে দেখা যাচ্ছে শহরের দৈনিক সংক্রমণ হচ্ছে ৫০০ জন করে। সেক্ষেত্রে কিছু এলাকায় বিক্ষিপ্তভাবে সংক্রমণ হচ্ছে। অন্যদিকে অনেক জায়গায় সংক্রমণ থেমে গিয়েছে।’ শহরে এইভাবে দ্রুত অবস্থার উন্নতির জন্য এদিন নাগরিক সচেতনতা বৃদ্ধির দিকেই ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রশাসক। তিনি বলেন, ‘বর্তমানে দ্বারা সংক্রমিত হচ্ছেন তারা নিজের থেকেই বিনামূল্যে সরকারি কোয়ারানটিন সেন্টারে চলে যাচ্ছেন। ফলে কনটেনমেন্ট জ়োনের প্রয়োজন হচ্ছে না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here