pic-kolkata bengali news

ডেস্ক: ভোটে জেতার জন্য কৃষক, শ্রমিক সহ নিম্নবিত্ত শ্রেণির মানুষের সমর্থন বিশেষ জরুরি। তাই তাদের পাশে পেতে বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের বদায়ুঁ জেলার আনোলা কেন্দ্রের জনসভা থেকে ঋণগ্রস্ত কৃষকদের জেলে না পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। একইসঙ্গে পরোক্ষে মোদী সরকারের সঙ্গে বিজয় মালিয়া, নীরব মোদী মতো প্রতারকের আঁতাতের অভিযোগ তুলে বিষোদ্গার করেন তিনি।

এদিন বিজয় মালিয়া, নীরব মোদীর প্রসঙ্গ টেনে রাহুল গান্ধী বলেন, ‘যে সমস্ত ব্যবসায়ীরা কয়েক কোটি টাকার ঋণ নিয়েছে, তাদের জেলে যাওয়া আটকাতে দেশ ছেড়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। অথচ কৃষকেরা মাত্র ২০ হাজার টাকার ঋণ পরিশোধ করতে না পারলে তাদের জেলে পাঠানো হয়েছে।’ তবে কংগ্রেস সরকারে এলে আর সেটা হবে না দাবি জানিয়ে কংগ্রেস সভাপতির প্রতিশ্রুতি, ‘আমরা সরকার গঠন করলে একজন কৃষকও ঋণের দায়ে জেলে যাবে না। বড়ো প্রতারকদেরই জেলে ঢোকানো হবে।’ এপ্রসঙ্গে কংগ্রেস শাসিত রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশে কৃষকদের ঋণ মকুব করে দেওয়ার উদাহরণ টানেন তিনি। একইসঙ্গে নরেন্দ্র মোদীর নোটবন্দির প্রসঙ্গ তুলে রাহুলের খোঁচা, নোটবন্দি করে মোদী জনগণের টাকা ছিনতাই করে নিয়েছে। এবার কংগ্রেস সেই টাকা দরিদ্রদের অ্যাকাউন্টে দেবে। গত পাঁচ বছরে দেশে বেকারত্বের হার সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে বলেও তাঁর অভিযোগ।

আনোলার জনসভা থেকে এদিন রাহুল গান্ধী বিজেপির পাশাপাশি এসপি, বিএসপি জোটকেও একহাত নেন। এসপি, বিএসপিকে নরেন্দ্র মোদীর ‘হাতের পুতুল’ কটাক্ষ করে জনগণের প্রতি তাঁর প্রশ্ন, ‘এসপি, বিএসপি কখনও চৌকিদার চোর হ্যায় বলেছে? না, কারণ তাদের চাবিকাঠি রয়েছে মোদীর হাতে।’ এদিন রাহুল গান্ধীর জনসভায় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক তথা উত্তরপ্রদেশের পশ্চিমাঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত কংগ্রেস নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াও উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here