নিজস্ব প্রতিবেদক, দিনহাটা: কিছুদিন আগেই জেলার সাংসদ সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়েছিলেন আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে দলের যুব সংগঠনের নেতা ও কর্মীরা জেলার প্রতিটি এলাকায় দলের প্রার্থীদের হয়ে প্রচার করবেন। তিনি এটাও জানিয়েছিলেন আলাদা সংগঠন বা দল বলে কিছুই নেই, সবটাই এক ও অভিন্ন তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠন। কিন্তু সেই ঘোষনা যে বাস্তবে জেলায় দলের মাদার ও যুব সংগঠনের বিরোধ বিন্দুমাত্র মেটাতে পারেনি সেটা বৃহস্পতিবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল যুব সংগঠনের সমর্থিত এক নির্দল প্রার্থী আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায়।

জানা গিয়েছে, জেলার দিনহাটা-১ ব্লকের দিনহাটা-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের আমবাড়ি এলাকার ৭/২৬৭ নং বুথে তৃনমূল যুব কংগ্রেসের হয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন ননীগোপাল বর্মণ নামে এক বাসিন্দা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ওই বুথ থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের মাদার গোষ্ঠীর প্রার্থী সন্তোষ বর্মণ জোড়া ফুল প্রতীক পেয়ে যাওয়ায় ননীগোপাল বর্মণ নির্দল প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে ময়দানে নামেন। ননীগোপাল বর্মণ দলের বিরুদ্ধে নির্দল প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায় তার বাড়িতে প্রায়ই হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠে দলেরই বিরোধী গোষ্ঠীর কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে। বুধবার রাতে ননীগোপাল বর্মণের বাড়িতে গুলি-বোমা ছুঁড়ে মোটর বাইক ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ।

তৃনমূল যুব কংগ্রেসের দিনহাটা-১ ব্লকের আহ্বায়ক নারায়ণ শর্মা বলেন,’মাদার তৃণমূল মনোনীত প্রার্থী সন্তোষ বর্মণের নেতৃত্বে আমবাড়ি এলাকায় আমাদের যুব কর্মী তথা প্রার্থীর বাড়িতে গুলি-বোমা ছুঁড়ে, মোটরবাইক ও বাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। যুব ওই প্রার্থী ও তার বাড়ির লোকজনকে প্রানে মারার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। ঘটনার কথা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সাধারন সম্পাদক দিনহাটা-১ ব্লক সভাপতি নিশীথ প্রামাণিককে জানানো হয়েছে।’ যুব সংগঠনের প্রার্থীর অভিযোগকে দলেরই দিনহাটা গ্রাম পঞ্চায়েত-২ অঞ্চল সভাপতি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেন। তিনি বলেন প্রার্থীর বাড়িতে গুলি-বোমা ছোঁড়া ও বাড়ি ভাঙচুরের যে অভিযোগ তোলা তা উদ্দেশ্য প্রণোদিত। এই ঘটনার সঙ্গে দলের কোন সম্পর্ক নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here