ডেস্ক: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ভারতের দাপুটে পার্ফরম্যান্স অব্যাহত একদিনের সিরিজেও। গুয়াহাটিতে প্রথম একদিনের ম্যাচে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সামনে কার্যত দাঁড়াতেই পারল না ক্যারিবিয় বোলাররা। এদিন টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ঘড়ের মাটিতে রান তাড়া করার ক্ষেত্রে বরাবরই পারদর্শিতা দেখিয়েছে ভারত। তার উপর প্রতিপক্ষ হিসাবে রয়েছে ফর্মে না থাকা উইন্ডিজ। তাই ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের একাংশ ধরেই নিয়েছিলেন ভারতের ম্যাচ জেতা শুধু সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু ২২ গজের লড়াই যে খাতায় কলমে বা সম্ভাবনা তত্ত্বেও নির্ধারণ করা দুষ্কর তাই যেন হাড়ে হাড়ে বুঝিয়ে দিচ্ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরা। বর্সাপারা স্টেডিয়ামের ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে বেশ সাদামাটা দেখাচ্ছিল ভারতীয় বোলারদের। বোলারদের দুর্বলতার সেই সুযোগকে কাজে লাগাতে ভুল করলেন না বিপক্ষের ব্যাটসম্যানরা।

মার্লন স্যামুয়েলস, চন্দ্রপল হেমরাজ ছাড়া অন্যান্য ব্যাটসম্যানরা মোটের উপর রান পেয়েছেন। ওপেনার কিরেন পওয়েল অর্ধশতরান (৫১) করে বড় রান খাড়া করার ক্ষেত্রে দলের ভিত গড়ে দিয়েছিলেন। বাদবাকি কাজটা করলেন সিমরন হেটমেয়ার। ৭৬ বলের ১০৬ রানের দুরন্ত ইনিংস উইন্ডিজদের স্কোরকে ৩২২ রানে নিয়ে যেতে সাহায্য করেছে। হেটমেয়ারের ইনিংস সাজানো রয়েছে ছয়টি বাউন্ডারি এবং ছয়টি ওভার বাউন্ডারি দিয়ে। এছাড়াও উল্লেখযোগ্য রান পেয়েছে সাই হোপ (৩২), অধিনায়ক জেসন হোল্ডার (৩৮), কেমার রোচ (২৬), দেবেন্দ্র বিশু (২২), রোভম্যান পাওয়েল (২২)। ভারতীয় বোলারেরদের মধ্যে সর্বাপেক্ষা সফল যুজবেন্দ্র চাহাল। ১০ ওভারে ৪১ রান দিয়ে নিয়েছেন তিনটি উইকেট। এছাড়াও দুটি উইকেট নিয়েছেন বাংলার পেসার মহম্মদ সামি এবং রবীন্দ্র জাদেজা। একটি উইকেট পেয়েছেন খালিল আহমেদ। টি২০-র যুগে একদিনের স্কোরবোর্ডে ৩০০ রান যেন রোজনামচা লক্ষ্যমাত্রা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবু ম্যাচের দিকে নজর রেখেছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট প্রেমীরা। কারণ ভারতের মাটিতে কোহলি ব্রিগেড চাপের মুখে কেমন খেলে সেদিকেই নজর ছিল সকলের। পাশাপাশি ম্যাচ শুরুর আগের সেই ফুরফুরে মেজাজটাও অনেকাংশে উধাও হয়ে গিয়েছিল।

ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই শিখর ধাওয়ানের (৪) উইকেট হারায় ভারত। স্বভাবতই ইনিংস শুরুতে কিছুটা চাপে পড়ে গিয়েছিল ‘মেন ইন ব্লু ব্রিগেড’। এমতবস্থায় ত্রাতা হিসাবে ধরা দিলেন মুম্বইনিবাসী ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা এবং যথারীতি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। দুই ব্যাটসম্যানের বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ের সামনে কার্যত উড়ে গেল ক্যারিবিয় বোলাররা। ৪২.১ ওভারে ৩২২ রানের লক্ষ্যমাত্রা পেড়িয়ে যায় ভারত। রোহিতের ব্যাট থেকে পাওয়া গেল চোখ ধাঁধানো ১১৭ বলের ১৫২ রানের ইনিংস এবং ‘ভিকে ১৮’-এর ১০৭ বলে ১৪০ রান। দুই ব্যাটসম্যানের মিলিজুলি স্ত্রাইকরেটও প্রায় ১৩০। রোহিতের ইনিংস সাজানো রয়েছে ১৫ টি বাউন্ডারি এবং ৮ টি ওভার বাউন্ডারি দিয়ে। উল্টো দিকে বিরাটের ইনিংসে রয়েছে ২১ টি চার এবং ২ টি ছয়। সবমিলিয়ে ৪২.১ ওভারে ভারতের স্কোর ৩২৬/২

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here