ডেস্ক: নির্মলা সীতারমণ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দায়িত্বভার নেওয়ার পরবর্তী সময় থেকেই দ্রুত বদলেছে ভারতীয় প্রতিরক্ষার রূপরেখা। সেনা খাতে বরাদ্দ হয়ে আরও বেশি পরিমাণ অর্থ, আমদানি হচ্ছে অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্রও। প্রতিরক্ষা দফতরের এই নিরলস প্রয়াসের প্রতিফলন দেখা যেতে শুরু করেছে বিভিন্ন সমীক্ষাতেও। ‘ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ’ (আইআইএসএস) নামের এক সংস্থা প্রতিবছর শক্তিশালী দেশগুলির প্রতিরক্ষা খাতে বরাদ্দ বাজেট নিয়ে একটি সমীক্ষা চালায়। সেই সমীক্ষায় উঠে এসেছে, বিশ্বের প্রথম পাঁচটি দেশের মধ্যেই রয়েছে ভারতের নাম। চমকপ্রদ ভাবে প্রতিরক্ষা খাতে বাজেটের নিরিখে ব্রিটেনকেও পিছনে ফেলে দিয়েছে ভারত।

আইআইএসএস-এর এই রিপোর্টে জানা গিয়েছে, ২০১৭ সালে সামরিক খাতে ভারত ৩,৩৬,২৩৬ কোটি টাকা খরচ করেছে। যা গত বছরের তুলনায় বেশি। গত বছর বরাদ্দ অর্থের পরিমাণ ছিল ৩,২৭,৩২১ কোটি টাকা। সামরিক খাতে বরাদ্দ বেড়ে যাওয়ার ফলেই এই সমীক্ষায় উঠে এসেছে ভারত। গত বছর পর্যন্ত এই তালিকায় ভারতের স্থান ছিল ষষ্ঠ।

অন্যদিকে, ভারত পঞ্চম স্থান পাওয়ার ফলে একধাপ নেমে গিয়েছে ব্রিটেন। ভারতের আগেই এই চতুর্থ স্থানে রয়েছে রাশিয়া। সেই দেশের সরকার সামরিক খাতে বরাদ্দ করেছে ৪,৯১,৩০১ কোটি টাকা। সমীক্ষার ভিত্তিতে তৃতীয় স্থানে রয়েছে সৌদি আরব। মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশ নিজেদের সামরিক খাতে বছরে আপাতত ৪,৯১,৩০১ কোটি টাকা বরাদ্দ রেখেছে। শক্তিধর দেশগুলির তালিকায় দ্বিতীয় স্থানেই ড্রাগনের দেশ চিন। প্রতিরক্ষা খাতে চিনের আর্থিক বরাদ্দ ভারতের দ্বিগুণের চেয়েও বেশি, ৯,৬৪,০২৭ কোটি টাকা। খুব প্রত্যাশিত ভাবেই সামরিক খাতে অর্থ ব্যায়ের দিকে সবার আগে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। প্রতি বছর ভারতের তুলনায় প্রায় ১১ গুণ বেশি অর্থ নিজেদের প্রতিরক্ষার খাতে খরচ করে আমেরিকা। সামরিক খাতে মার্কিনী দেশের বরাদ্দ ৩৮,৬১,২৩৫ কোটি টাকা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here