ডেস্ক: দেশ বিদেশের বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে এর আগে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের সাফল্য ব্যাখ্যা করেছিলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ফের একবার লন্ডনে প্রবাসী ভারতীয়দের সামনে দাঁড়িয়ে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে খোলাখুলি কথা বললেন মোদী। বুধবার লন্ডনের সেন্ট্রাল হলে ‘ভারত কি বাত, সবকে সাথ’ অনুষ্ঠানে মোদীজি বলেন, সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর এই খবর সংবাদ মাধ্যমকে জানানোর আগে প্রথম পাক সেনাবাহিনীকে জানানোর নির্দেশ আমিই দিয়েছিলাম। কিন্তু ওঁরা ভয়ে ফোনই তোলেনি।’

এই অনুষ্ঠানে পাকিস্থানকে একহাত নিয়ে তিনি বলেন, ‘কিছু কাপুরুষ এসে আমাদের জওয়ানদের হত্যা করছে। এই রকম অবস্থায় আমি চুপ করে বসে থাকব এটা নিশ্চয়ই আপনারা চান না। তাঁদের উপযুক্ত জবাব দেওয়া উচিৎ নয় কি? যারা সন্ত্রাবাদী কার্যকলাপ চালায় তাঁদের জন্য ২০১৬ সালের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নি সন্দেহে উপযুক্ত জবাব ছিল। এবং তাদের বার্তা দেওয়া হল যে ভারত বদলে গেছে ও এরকম কার্যকলাপ সহ্য করা হবে না।’ একইসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের সেনাদের জন্য আমি গর্বিত। ১০০ শতাংশ নিখুঁতভাবে ওই অপারেশন করেছিল সেনারা। এবং সূর্যাস্তের আগে তাঁরা ফিরেও এসেছিল।’

সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে এদিন বেশ কিছু অজানা তথ্য ফুটে ওঠে দেশের প্রধানমন্ত্রীর মুখে। তিনি বলেন, ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক শেষ হওয়ার পর। সর্বপ্রথম পাক সেনাকে তা জানানোর চেষ্টা করা হয়। আমি চেয়েছিলাম, এই খবর সংবাদ মাধ্যমকে জানানোর আগে প্রথম পাক সেনাবাহিনীকে জানানো হোক কিন্তু কিন্তু ওরা ভয়ে ফোনই তোলেনি। পরের দিন দুপুরে তাদের ফোনে পাওয়া যায়। তারপর সংবাদমাধ্যমকে স্ট্রাইকের কথা জানানো হয়। একইসঙ্গে ওইদিনের সভায় দেশে ধর্ষণের মতো বর্বর ঘটনা নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘একটা বাচ্চা মেয়েকে ধর্ষণের চেয়ে ভয়ানক আর কি হতে পারে? তবে এই প্রশ্ন তোলাও লজ্জাজনক এই ঘটনা আমাদের সময়ে বেশী ঘটেছে নাকি অন্যদের সময়ে? এধরনের ঘটনা মেনে নেওয়া হবে না কখনই।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here