ডেস্ক: পরিশ্রুত জলের অভাবে ভারতের বুকে ঘনিয়ে আসছে ভয়াবহ বিপদ। এমনটাই জানাচ্ছে, সম্প্রতি প্রকাশিত নীতি আয়োগের জল সূচক বিষয়ক একটি রিপোর্ট। এই রিপোর্টের তথ্যে রীতিমত কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের।

নীতি আয়োগের এই রিপোর্টে বলা হয়েছে, ভারতের প্রায় ৬০ কোটি মানুষের কাছে এই মুহুর্তে নিরাপদ জল সম্পদ নেই। আর এই পরিশ্রুত জল না পেয়েই প্রতি বছর প্রাণ হারাচ্ছেন দেশের প্রায় ২ লক্ষ মানুষ। রিপোর্টে এও বলা হয়েছে, ২০৩০ সালের মধ্যেই এই জলসঙ্কট ভয়াবহ রূপ নিতে চলেছে। যার প্রভাবে প্রাণহানির সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। জলসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী নীতিন গড়কড়ির প্রকাশিত কম্পোজিট জল সূচক ব্যবস্থা সংক্রান্ত এক রিপোর্ট অনুযায়ী, বিশ্বের ২১ টি বড়ো শহরের ভূগর্ভস্থ জল ভাণ্ডার প্রায় তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। ২০২০ সালের মধ্যেই তা সম্পূর্ণ রূপে নিঃশেষ হওয়ার আশঙ্কায় ভুগছেন বিশেষজ্ঞ মহল। যার দরুন চরম জলকষ্টের মধ্যে পড়তে হতে পারে অন্তত ১০ কোটি মানুষকে। গবেষণা বলছে, বর্তমানে ৭৫ শতাংশ ভারতীয়র বাড়িতেই পানীয় জলের কোনও ব্যবস্থা নেই। প্রত্যন্ত গ্রামগুলোর অধিকাংশ বাড়িতেই নেই কলের মাধ্যমে জল সরবরাহের ব্যবস্থা।

নীতি আয়োগ কমিশন কম্পোজিট জল ব্যবস্থার ভিত্তিতে এই তালিকা পেশ করেছেন। সেখানে ভূগর্ভস্থ জল, জল সংরক্ষণ, সেচ ব্যবস্থা, ফার্ম, পানীয় জলের সরবরাহ ব্যবস্থা ও পরিচালন কাঠামোর ২৮টি পৃথক সূচকের ভিত্তিতে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এখানে বিশ্বের ১২২টি দেশের মধ্যে জলমানের সূচকের তালিকায় ভারতের স্থান ১২০তে, যা সত্যিই চিন্তনীয়। জল সরবরাহের নিরিখে রাজ্যগুলির মধ্যে সবার উপরে আছে গুজরাত। তারপরেই রয়েছে মধ্যপ্রদেশ, অন্ধপ্রদেশ, কর্ণাটক ও মহারাষ্ট্র। তবে বাকি রাজ্য গুলোর অবস্থা সঙ্কটজনক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here