kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: হিন্দি দিবসে এক দেশে এক ভাষার পক্ষে সওয়াল করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। অর্থাৎ এক দেশে একটিই জাতীয় ভাষা থাকবে। প্রকাশ্যেই খুব প্রত্যাশিতভাবে হিন্দিকে জাতীয় ভাষা করার দাবি তুলেছেন তিনি। যা নিয়ে হিন্দি বলয় বাদ দিয়ে দেশের অন্যান্য প্রান্ত থেকে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেওয়া শুরু করেছেন রাজনীতিবিদরা। গর্জে উঠেছেন স্ট্যালিন। এবার হিন্দি চাপিয়ে দেওয়ার বিরুদ্ধে মুখ খুললেন হায়দরাবাদের লোকসভা সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়েসি। হিন্দিকে একমাত্র জাতীয় ভাষা ঘোষণা করার বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে একহাত নিয়েছেন তিনি।

শনিবার হিন্দি দিবসে হিন্দির পক্ষে সওয়াল করেছিলেন শাহ। পাল্টা টুইটারে ওয়েসি অমিতকে মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, হিন্দি কিন্তু সকল ভারতীয়দের মাতৃভাষা নয়। ভাষাগত যেই বৈচিত্র এত বড় একটা দেশকে নানা আঙ্গিকে জুড়ে রেখেছে সেই বৈচিত্রকে সম্মান করতে সমস্যা কোথায়? সংবিধানের ২৯ নম্বর অনুচ্ছেদ তো প্রত্যেক ভারতীয়কে নিজের পছন্দসই ভাষা, এবং সংস্কৃতি বেছে নেওয়ার অধিকার দিয়েছে। একের পর এক প্রশ্ন দেগে শেষে ওয়েসি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে মনে করিয়ে দিয়েছেন, ভারত কিন্তু হিন্দি, হিন্দু এবং হিন্দুত্বের থেকে অনেক অনেক বড়।

এদিন অমিত শাহ বলেছিলেন, ‘ভারত বহু ভাষার দেশ। সব ভাষারই নিজস্ব গুরুত্ব রয়েছে। কিন্তু একটা সাধারণ ভাষা থাকা জরুরি, যা গোটা বিশ্বের কাছে দেশের পরিচয় হয়ে দাঁড়াবে।’ এরপরই আঞ্চলিক দলগুলির পক্ষ থেকে একের পর এক তীব্র প্রতিক্রিয়া আসতে শুরু করেছেন।

অমিত শাহ এদিন টুইটে লেখেন, ‘ভারত ভিন্ন ভিন্ন ভাষার দেশ এবং প্রত্যেক ভাষার নিজস্ব গুরুত্ব রয়েছে। কিন্তু, এমন একটা ভাষার প্রয়োজন যা বিশ্বে ভারতের পরিচয় তৈরি করতে পারে। আর যদি কোনও ভাষা এই কাজ করতে পারে সেটা একমাত্র হিন্দির দ্বারাই সম্ভব।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই টুইটের পরই দক্ষিণের স্ট্যালিন বলেন, এটা হিন্ডিয়া নয়। ইন্ডিয়া। অন্যদিকে ওয়েসি সংবিধান ও বৈচিত্রের কথা মনে করিয়ে দেন অমিত শাহকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here