দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এক লাফে সাড়ে ২৬ হাজার ছাড়িয়ে গেল। রবিবার বিকেলে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা ২৬,৯১৭। দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮২৬। শেষ ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯৭৫ জন। যা ২৪ এখনও পর্যন্ত সবথেকে বড় বৃদ্ধি। এই সময়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৪৭ জন। ভারতে করোনা আক্রান্তদের সুস্থ হওয়ার হারও এদিন বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানানো হয় কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে। বর্তমানে দেশে সুস্থ হওয়ার হার বেড়ে হয়েছে ২২ শতাংশ।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মোট আক্রান্তের মধ্যে ৬৮ শতাংশ কেস উঠে এসেছে দেশের ২৭টি জেলা থেকে। কেন্দ্রের রিপোর্ট অনুযায়ী, এখনও দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে।  তারপরেই আছে গুজরাট, দিল্লি , মধ্যপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা। শেষ পাওয়া খবরে, ৫,৮০০ জনের বেশি করোনা আক্রান্ত সেরে উঠেছেন এই মারণ ভাইরাসের কবল থেকে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ মার্চ জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইতিমধ্যেই লকডাউন বহু মানুষের চিন্তা বাড়িয়েছে, প্রত্যেকটি মানুষ কষ্টে আছেন। কিন্তু করোনাভাইরাস আটকাতে দেশবাসী যে প্রয়াস করছেন তা অভূতপূর্ব। এই প্রেক্ষিতে তিনি সকল দেশবাসীকে প্রণাম জানান। পাশাপাশি এও বলেন, ভাইরাস পরিস্থিতি রুখতে ভারত বিশ্বের অন্যান্য দেশের অনেক আগে থেকেই পদক্ষেপ নিয়েছে। তাই আজকের দিনে দাঁড়িয়েও ভারতের অবস্থা অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক ভালো।

এই মন্তব্য করেই প্রধানমন্ত্রী, বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করে তিনি তাদের রাজ্যের পরিস্থিতির কথা জেনেছেন। মুখ্যমন্ত্রীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের আর্জি যাতে লকডাউন বাড়ানো হয়। তিনিও মনে করেন, যে এই পরিস্থিতিতে লকডাউন বাড়ানোই শ্রেয়। তাই বড় ঘোষণা করে প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দেন, ৩ মে পর্যন্ত লকডাউন চলবে ভারতবর্ষে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here