ডেস্ক: একদা ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ হলেও বর্তমানে ভারত পাকিস্তানের সেই সম্পর্ক বোঝানোর জন্য সাপে-নেউলে, আদায়-কাঁচকলায় নামক উপমাই প্রযোজ্য হয় এখন। ভারতের তরফে একাধিকবার দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক ঠিক করতে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হলেও তা বিশেষ কাজে দেয়নি। তবে এবার বোধহয় সম্পর্কের তপ্ত লোহায় কিছুটা শীতলতার প্রলেপ পড়তে চলেছে। ১৯৪৭ সালে দেশভাগের পর এই প্রথমবার যৌথ সেনা মহড়ায় অংশ নিতে চলেছে ভারত-পাকিস্তান।

আগামী সেপ্টেম্বর মাসে শান্তির লক্ষ্যে একটি যৌথ মহড়ার আয়োজন করেছে সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশন(SCO)। সেখানে এসসিও অর্গানাইজেশনভুক্ত অন্যান্য দেশগুলির সঙ্গে অংশ নেবে ভারত পাকিস্তানও। বেজিংয়ে এই অর্গানাইজেশনের পঞ্চদশ বৈঠকে যোগ দেওয়ার ঘোষণা করেছেন ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। তিনি জানান, এসসিওভুক্ত অন্যান্য দেশগুলির সঙ্গে খুব ভালো সম্পর্ক রয়েছে ভারতের। প্রতিরক্ষাক্ষেত্রে অন্যান্য দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্ক আরও মজবুত করতে ‘পিস মিশন ২০১৮’ তে অংশগ্রহণ করেবে ভারত। তবে পিস মিশন ২০১৮ তে অংশগ্রহণকারী দেশগুলির তালিকায় যে পাকিস্তানও আছে এবং পাকিস্তানের সঙ্গে এই মহড়ায় যোগ দিচ্ছে ভারত তা সম্পুর্ণ এড়িয়ে যান ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

উল্লেখ্য, গত বছরই এসসিও তে পূর্ণ সময়ের সদস্যপদ পেয়েছে ভারত ও পাকিস্তান। এবং এই মহড়ায় যোগ দেবে চিন রাশিয়ার মতো অন্যান্য শক্তিধর দেশগুলি। এই সেনা মহড়ায় প্রথমবার যোগ দেবে ভারত ও পাকিস্তান। কাশ্মীর সীমান্তে বরাবর একে অপরের শত্রুপক্ষ দুই দেশ এবার বন্ধুত্বপূর্ণ মহড়ায় যোগ দেবে এই প্রথমবার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here