kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রাষ্ট্রপুঞ্জের মঞ্চে একদিকে যখন কাশ্মীরকে সামনে রেখে যুদ্ধের হুমকি দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সেখানেই বিশ্ব শান্তি ও উন্ন্যনের বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে ইমরানের বক্তব্যের পর পাকিস্তানকে ছেড়ে কথা বলল না ভারত। রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভায় ‘রাইট টু রিপ্লাই অপশন’ ব্যবহার করে পাক প্রধানমন্ত্রীর কড়া সমালোচনা করল ভারত।

ইমরানের বক্তব্যের পরই শুক্রবার ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের তরফে বিদিশা মৈত্র ফাঁস করে দেন পর্দার আড়ালে থাকা পাকিস্তানের আসল চেহারাটা। তাঁর কোথায় উঠে আসে পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ যা বার বার আঘাত করে এসেছে ভারতকে। পাশাপাশি, পাকিস্তানের যুদ্ধের হুঁশিয়ারির প্রেক্ষিতে বিদিশা বলেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বক্তব্য কোনও রাষ্ট্রনেতার বক্তব্য নয়। উনি বারবার ভয়ঙ্কর পথে চলার বার্তা দিচ্ছেন যা একেবারেই অনভিপ্রেত।

পাশাপাশি, কাশ্মীরের মানবতা নিয়ে যেভাবে বারেবারে আন্তর্জাতিক মঞ্চে পাকিস্তান সরব হয়ে উঠেছে তার পাল্টা দিয়ে এদিন ভারতের তরফে জানানো হয়, মানবতার জ্ঞান দেওয়ার মতো অবস্থান কোনওভাবেই পাকিস্তানের নেই। যে দেশ সংখ্যালঘুদের কমিয়ে আনতে আনতে একেবারে নিশ্চিহ্ন করে ফেলেছে। যে দেশে বারবার সংখ্যালঘুদের ধর্মান্তকরনের চেষ্টা চালানো হয়, তারা কোন মুখে মানবতা নিয়ে জ্ঞান দেয়? একইসঙ্গে ভারত এটাও জানায়, ‘পাকিস্তান যেখানে সন্ত্রাসবাদের আঁতুড়ঘর, রাষ্ট্রপুঞ্জে আন্তর্জাতিক জঙ্গি স্বীকৃতি পাওয়া জঙ্গিরা ওই দেশে আশ্রয় নিয়েছে, সেই দেশ কীভাবে অন্য দেশের বিরুদ্ধে নাশকতার অভিযোগ আনে?

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাষ্ট্রপুঞ্জের মঞ্চে কাশ্মীর ইস্যুতে সেখানে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ আনেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বলেন, ‘কাশ্মীরে ভারত যে ভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে, তাতে উপত্যকার কোনও যুবক ফের পুলওয়ামার মতো ঘটনা ঘটাতে পারে। তখন ভারত আবারও দায়ী করবে পাকিস্তানকে।’ তাঁর এই মন্তব্যের পাল্টা দিয়ে আন্তর্জাতিক মঞ্চে রীতিমতো জবাব দিল ভারত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here