মহানগর ওয়েবডেস্ক: লোকসভা নির্বাচনের ঠিক আগে রাফাল ইস্যুতে রাহুল বাণে বারবার বিদ্ধ হতে হয়েছে মোদীকে। সেখানে অনিল আম্বানির সংস্থাকে বরাতের পাশাপাশি, কেন আগের চুক্তি বাতিল করে রাফালের সংখ্যা কমায় মোদী সরকার তোলা হয় ওঠে সে প্রশ্নও। তর্ক বিতর্ক থাকলেও বায়ুসেনার ভাঁড়ারে যুদ্ধ বিমানের ঘাটতি পুরণ হয়নি। এবার সেই রাফাল বিতর্কে পিছনে ফেলে বায়ুসেনার বিমানের ঘাটতি পুরণ করতে ১১৪ টি যুদ্ধবিমান কিনতে চলেছে ভারত। সম্প্রতি সংসদে এমনই দাবি করলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রের খবর, এই বিপুল পরিমাণ যুদ্ধবিমান কিনতে খরচ করা হবে প্রায় এক লক্ষ তিন হাজার কোটি টাকা। সমস্ত পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করতে নথিপত্র তৈরির কাজও প্রায় শেষের পথে। যুদ্ধবিমানের যন্ত্রাংশ তৈরি করে এমন বেশ কয়েকটি সংস্থা প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের এই চুক্তিতে নিজেদের আগ্রহ প্রকাশ করেছে। নথিপত্রের সমস্ত কিছু খুটিয়ে দেখে শীঘ্রই এই বিষয়ে আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করা হবে। এই চুক্তির জন্য যে শর্ত রাখা হবে তা হল, ৮৫ শতাংশ যুদ্ধবিমানই তৈরি হবে ভারতে। আরও জানা যাচ্ছে, এক্ষেত্রে হ্যালের সঙ্গে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের চুক্তি হতে পারে এফ/এ ১৮ যুদ্ধবিমানের জন্য, এফ ২১ এর লোকহেডের জন্য চুক্তি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে টাটার সঙ্গে। এছাড়াও চুক্তি তালিকায় রয়েছে আদানি গ্রুপও।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরেই বিমানের সমস্যায় ভুগছে বায়ুসেনা। গোটা বিশ্ব যেখানে উন্নত প্রযুক্তি সম্পন্ন বিমান ব্যবহার করছে সেখানে এখনও ভারতের ভরসা মিগ ২১। যার নাম ইতিমধ্যেই দেওয়া হয়ে গিয়েছে উড়ন্ত কফিন। ফলস্বরূপ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের লক্ষ্য যত শীঘ্র সম্ভব বিমানের ঘাটতি পুরণ করা ও পুরানো বিমানগুলিকে বাতিল করা। আর সেই লক্ষ্যেই দ্রুত পৌঁছতে চাইছে তাঁরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here