ডেস্ক: মরশুমটা ভোটের হলেও, সময় যত এগোচ্ছে প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে শত্রুতা ততই বাড়ছে ভারতের। পুলওয়ামা হামলা ও ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের পর একাধিকবার সীমান্ত পেরিয়ে উঁকিঝুঁকি দিয়েছে পাক ড্রোন। পরিস্থিতি যে ভালো নয় তা অনুমান করে আগেই সাময়িক শক্তি বৃদ্ধিতে জোর দিয়েছে ভারত। সেই লক্ষ্যে এবার ভারতের কমব্যাট ফোর্সের জওয়ানদের জন্য ১০ লক্ষ গ্রেনেড কেনার সিদ্ধান্ত নিল ভারতের প্রতিরক্ষা দফতর।

সরকারি সূত্র মারফৎ এএনআই সূত্রের খবর, খুব শীঘ্রই প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের উচ্চপর্যায়ের এক বৈঠকের পরিকল্পনা করা হয়েছে। যে বৈঠকের নেতৃত্বে থাকবেন দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। সেই বৈঠক থেকেই ১০ লক্ষ গ্রেনেড কেনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। বর্তমানে ভারতীয় সেনা যে গ্রেনেড ব্যবহার করে তার তুলনায় এই গ্রেনেড হবে অনেক বেশি উন্নত। যে গ্রেনেড কেনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে তা মাল্টিমোডের। প্রসঙ্গত, এই মুহূর্তে সেনা ব্যবহার করে এইচ৩৬ গ্রেনেড। অনুমান করা হচ্ছে এই গ্রেনেড কিনতে সরকারের খরচ পড়বে প্রায় ৫০০ কোটি টাকা।

প্রসঙ্গত, পুলওয়ামার ঘটনার পর ভারতের সাময়িক অস্ত্রভাণ্ডার যে ব্যাপক পরিমাণে বাড়ানো হচ্ছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। ইতিমধ্যেই রাশিয়ার কালাশনিকভ ভারতের তৈরির প্রক্রিয়া শুরু করেছে ভারত। পাশাপাশি, গোটা বিশ্বের মধ্যে দেশের সমরাস্ত্রের সম্ভার বাড়াতে ও আমদানিতে সৌদি আরবের পরই নাম উঠে এসেছে ভারতের। এরইমাঝে সেনাকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে উন্নতমানের গ্রেনেড কেনার পরিকল্পনা করছে প্রতিরক্ষামন্ত্রক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here