ডেস্ক: দিনকয়েক আগেই ভারতে এসে নয়াদিল্লির সঙ্গে এস-৪০০ মিসাইলের চুক্তি করে গিয়েছিলেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন। এতে বেজায় চটেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নিষেধাজ্ঞা লাগানোর হুমকি মুখে দিলেও বাস্তবে তা করেনি হোয়াইট হাউস। তবে রাশিয়ার সঙ্গে সখ্যতার ফলে যে ক্ষত আমেরিকার মনে সৃষ্টি হয়েছিল, তা কিছুটা হলেও এবার লাঘব হতে পারে।

মার্কিন কোম্পানি লকহিড মার্টিনের সঙ্গে বিরাট অংকের হেলিকপ্টার কেনার চুক্তি করতে চলেছে ভারত। প্রতিরক্ষা সূত্রে খবর, এই অত্যাধুনিক মানের চপারের নাম ‘এম এইচ ৬০ রোমিও’। প্রায় ১৫ হাজার কোটির এই চুক্তিতে আমেরিকার কাছে থেকে ২৪টি অত্যাধুনিক চপার কিনবে ভারত। এই চপার গুলির বিশেষত্ব হল, আকাশ থেকে সমুদ্রের গভীরে থেকে সাবমেরিন বা ডুবোজাহাজ-কে নিশানায় নিয়ে নিমেশে ধ্বংস করে দিতে পারে রোমিও। বর্তমানে আমেরিকা বায়ু ও নৌসেনা এই হেলিকপ্টার ব্যবহার করে বলে জানা গিয়েছে। মূলত দেশের উপকূল এলাকার সুরক্ষা বাড়াতেই সেনা বাহিনীতে এই চপারকে অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ভুমধ্যসাগরে দীর্ঘদিন ধরেই দাপাদাপি শুরু করেছে চিন। যার ফলস্বরূপ কিছুটা হলেও চিন্তায় রয়েছে ভারত। চিনের সবথেকে মারাত্মক অস্ত্রই হচ্ছে তাদের সাবমেরিন, যা ডুব দিয়ে দীর্ঘ সময় সমুদ্রের তলায় থেকে বিধ্বংসী হামলা চালাতে সক্ষম। সেই কথা মাথায় রেখেই ভারতীয় নৌসেনার জন্য রোমিও আলাদাই গুরুত্ব বহন করতে পারে। আর্জেন্টিনায় আগামী ৩০ নভেম্বর এবং ১ ডিসেম্বর জি ২০ সম্মেলনে মুখোমুখি হতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদী ও ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে মোদীর বন্ধুত্ব ইতিমধ্যেই সর্বজনবিদিত। মনে করা হচ্ছে সেই বৈঠকেই এই চুক্তি সেরে ফেলতে পারে ভারত। এমনটা হলে একদিকে যেমন পেশিবল বাড়বে ভারতীয় সেনার, অন্যদিকে ট্রাম্পের সঙ্গেও বন্ধুত্ব আরও গভীর হবে মোদীর।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here