নদী পথে ভেসে এসেছিল একরত্তির দেহ, প্রোটোকল ভেঙে পাকিস্তানকে ফেরাল ইন্ডিয়ান আর্মি

0
1439

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ভারতীয় সেনাবাহিনীর অনেক কিছুই গর্ব করার মতো। বলতে শুরু করলে তা শেষ করা সম্ভব নয়। কিন্তু চূড়ান্ত পেশাদারিত্বের মধ্যেই যে ভাবে মানবিক পরিচয় তারা দিয়েছে, তা দেখার পর ভারতীয় সেনার নামে ধন্য ধন্য করছে পাকিস্তানের জনগণই। যদিও গল্পটা মোটেই মন ভালো করার মতো নয়। কিন্তু তাও, ভারতীয় সেনার এই অদম্য কীর্তিতে স্যালুট জানাচ্ছেন নেটিজেনরা।

ঘটনা হচ্ছে, নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর পাকিস্তানের একটি গ্রাম থেকে এক নদীর পথ ধরে ভেসে ভেসে ভারতে চলে এসেছিল এক সাত বছরের একরত্তি বালকের দেহ। প্রচন্ড ঠান্ডা ও বরফের কারণে দেহটিতে পচন ধরেনি ঠিকই। কিন্তু বরফাবৃত অবস্থায় সেই দেহ চলে আসে ভারতীয় সেনাবাহিনীর হাতে। দেহ উদ্ধার করে অবশেষে তিনদিন পর পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর হাতেই ওই দেহ তুলে দেয় ভারতীয় সেনার জওয়ানরা। যা সৌদার্হ্যের এক নতুন নজির সৃষ্টি করলেও সঙ্গে মনও খারাপ করিয়েছে সকলের।

দিন তিনেক আগে উত্তর কাশ্মীরের গুরেজ উপত্যকার আছুর গ্রামের। মঙ্গলবার দুপুরে প্রথম আছুরার কয়েকজন বাসিন্দা কিষানগঙ্গা নদীতে বালকের ভাসমান দেহ দেখতে পান। দেহের বিষয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে জানান হলে তারাই রেখে দেয় সেটি। ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা যায় একটি ভিডিয়ো। যেখানে দেখা যায়, পাক অধিকৃত কাশ্মীরে একটি পরিবার তাদের ছেলে আবেদের ফেরার আবেদন জানাচ্ছে। এই ভিডিয়ো দেখার পরই দেহটি পাকিস্তানের হাতে তুলে দেওয়ার বিষয়ে মনস্থির করে ভারতীয় জওয়ানরা। প্রোটোকল ভেঙে নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে গিয়ে ওই দেহ ফেরত দিয়ে আসা হয়।


জানা গিয়েছে, মৃত ও পাক কিশোরের নাম আহমেদ শেখ। ওই শিশুর দেহে যাতে পচন না ধরে, তার দেহ বরফ দিয়ে সংরক্ষণ করা হয়। এই ঘটনার পর গুরেজের প্রাক্তন বিধায়ক নাজির আহমদ গুরেজি বলেন, আমার জীবনে প্রথমবার এই ধরনের বিনিময় দেখতে পেলাম।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here