ডেস্ক: নিরব মোদীর মতো বিজয় মালিয়াকেও নিয়ম ভেঙে ঋণ দিয়েছিল কয়েকটি ব্যাঙ্ক। তাঁর প্রমানও রয়েছে। শুক্রবার বিজয় মালিয়া মামলার শুনানিতে এমনই জানালেন লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের বিচারক এমা আর্বাথনট। এই মামলায় তিনি স্পষ্ট জানান, কয়েক মাস আগে পর্যন্ত এই মামলার কোনও কিছুই স্পষ্ট ছিল না কিন্তু বর্তমানে প্রচুর তথ্য প্রমান হাতে আসার পর এটা স্পষ্ট। বিজয় মালিয়ার এই ঋণে মামলায় জড়িয়ে রয়েছেন ভারতেরই প্রচুর ব্যাঙ্ক কর্মী। শুধু তাই নয়
ওই ব্যাঙ্ককর্মীদের ডেকে পাঠিয়েছেন বিচারক।

৯ হাজার কোটি টাকা ব্যাঙ্ক প্রতারনা মামলায় অভিযুক্ত বিজয় মালিয়া শুক্রবার হাজিরা দেন লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে। ভারত সরকারের হয়ে সওয়াল করা ক্রাউন প্রসিকিউশন সার্ভিসের আইনজীবী মার্ক সামার্স বলেন, তদন্তকারীদের অনেক তথ্যই দিতে চাননি মালিয়া। এমনকি ভারত সরকারের দেওয়া তথ্যপ্রমাণের গ্রাহ্যতা নিয়ে মালিয়ার আইনজীবী ক্লেয়ার মন্টোগোমারির তোলা প্রশ্নও অবান্তর বলে আদালতকে জানান সামার্স। তবে আর্বাথনট স্পষ্ট জানিয়ে দেন সিপিএসের দেওয়া কোনও তথ্যে তিনি ভুল খুঁজে পাননি।

উল্লেখ্য, ব্যাঙ্ক প্রতারণার মামলায় এই মুহূর্তে লন্ডনে রয়েছেন বিজয় মালিয়া। তাঁকে ভারতে ফেরাতে লন্ডন আদালতে চলছে মামলাও। ভারতের আর্থার রোড জেলের যে কামরায় মালিয়াকে প্রত্যার্পনের পর রাখা হবে তার সব তথ্য ও ছবি লন্ডন আদালতে পেশ করেছে ভারত। রায় যদি ভারতের পক্ষে যায় সেক্ষেত্রে দু মাসের মধ্যে ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র সচিবকে মালিয়ার প্রত্যার্পণ চুক্তিতে সই করতে হবে। আর তারপরেই মালিয়াকে দেশে ফেরাতে পারবে ভারত। তবে এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারবে দুই পক্ষই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here