ডেস্ক: ফেসবুক অ্যানালেকার মাধ্যমে তথ্য নিয়ে ভারতের নির্বাচনে প্রভাব খাটানোর অভিযোগে বর্তমানে উত্তাল জাতীয় রাজনীতি। কংগ্রেস যে অ্যানালিটিকার থেকে টাকা দিয়ে তথ্য কিনেছে এমন অভিযোগ তুলেছেন কেন্দ্রীয় আইন এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। এরই মাঝে ফেসবুক নিয়ে এবার চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ করলেন ডেটা ডট আইওর সহ প্রতিষ্ঠাতা পল অলিভিয়র ডেহায়ির। এদিন ব্রিটিশ পার্লামেন্টে তথ্যচুরি সংক্রান্ত মামলায় সাক্ষ্য দিতে গিয়ে অলিভিয়র বলেন, ২০১৪ সালে ভারতের নির্বাচনে কংগ্রেসকে হারাতে তথ্য দেওয়া হয়েছিল বলে শুনেছেন তিনি।

ব্রিটিশ পার্লামেন্টের শুনানিতে অলিভিয়র বলেন, ‘ব্রিটিশ কোম্পানির হয়ে ভারতে কর্মরত দয়ান মুরেসনকে টাকা দিয়েছিল এক ভারতীয় কোটিপতি। তার দাবি ছিল কংগ্রেস যেন ২০১৪ সালের ভোটে হারে। পরে কেনিয়াতে রহস্যজনকভাবে মৃত্যু হয় মুরেসনের।’ অন্যদিকে, হাউস অফ কমন্সের ডিজিটাল, কালচারাল ও স্পোর্টস কমিটির সামনে সাক্ষ্য দিতে গিয়ে ক্রিস্টোফার ওয়েইলি নামে এক হুইসল ব্লোয়ার কংগ্রেসের সঙ্গে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকসের সম্পর্ক থাকার দাবি করেছেন। কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার ওই প্রাক্তন কর্মীর দাবি, ‘কংগ্রেস সংস্থার ক্লায়েন্ট ছিল অ্যানালিটিকার।’ সব মিলিয়ে অ্যানালিটিকার গ্রাহক তা নিয়ে শুরু হয়েছে বিস্তর জলঘোলা।

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন ধরে জাতীয় রাজনীতিতে কাদা ছোঁড়াছুড়ি শুরু হয়েছে ফেসবুককে মাধ্যম করে। ফেসবুকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে অনুমতি ছাড়াই কোটি কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরি করেছে অ্যানালিটিকা। আর তা দিয়েই ভারতের নির্বাচনে প্রভাব ঘটানো হচ্ছে। এই ঘটনার জেরে বিজেপির তরফ থেকে অভিযোগের আঙুল উঠেছে কংগ্রেসের দিকে। অন্যদিকে, কংগ্রেসের দাবি গুজরাত ভোটে তাদের হারাতে এক শিল্পপতি কেমব্রিজ অ্যানালেতিকার সাহায্য নিয়েছিল। এদিকে ক্রিস্টোফার ওয়েইলির সাক্ষ্যকে হাতিয়ার করে কংগ্রেসকে তুলোধোনা করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। রাহুল গান্ধিকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছেন তিনি। যদিও সেই অভিযোগ খারিজ করেছেন কংগ্রেসের রণদীপ সুরজেওয়ালা। একইসঙ্গে, শনিবার ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য ফাঁস-কাণ্ডে ব্রিটিশ কনসাল্টিং সংস্থা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকাকে নোটিস পাঠিয়েছে ভারত সরকার। ভারত থেকে কে বা কোন রাজনৈতিক দল অ্যানালিটিকার থেকে তথ্য নিয়েছে তা জানতে এই নোটিশ পাঠানো হয়েছে। এবং আগামী ৩১ মার্চের মধ্যে এই জবাব তলব করেছে কেন্দ্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here