Parul

মহানগর ডেস্ক: ঈশানের ব্যাট করতে নামার সময় ক্যাপ্টেন ধাওয়ান বলেছিলেন, “ব্যাপারটাকে সহজ করে চলো পার্টনারশিপ গড়ে তুলি”। আর কোচ দ্রাবিড়ের পরামর্শ, ক্যাপ্টেন ধাওয়ানের নেতৃত্বর সঙ্গে পিচের দু’পাশ ছাড়িয়েও যে সেই পার্টনারশিপ অনেকটাই দৃঢ় হয়েছে শ্রীলঙ্কার প্রেমদাস স্টেডিয়ামের ফকাফলেই তা স্পষ্ট। কোহলি-রোহিত-রাহানে-পান্ডিয়া ছাড়া ভারতীয় ক্রিকেটের পরবর্তী প্রজন্ম সোচ্চারে নিজের সম্ভবনা জানান দিলো কাল।

ads

শ্রীলঙ্কার দেওয়া ২৬৩ রানের লক্ষ্যমাত্রা অতি সহজেই ৩৫ ওভারে ৭ উইকেট বাকি রেখেই পূরণ করে নেয় ধাওয়ান ব্রিগেড। সম্পূর্ণ ম্যাচ জুড়েই ভারতের খেলোয়াড়রা আক্রমণাত্মক ছিল। ডেবিউ ওয়ান ডে ম্যাচেই ঝড় তুলেছে ঈশান কিশন। শুরুতেই ২৫ বলে পৃথ্বী শা এর ৪৫ রান ভারতকে অনেক তাড়াতাড়ি ৫৮ রানে পৌঁছে দেয়। পুরো ম্যাচ জুড়েই ভারতই ছিল ম্যাচের চালকের আসনে। তার আগে কুলদীপ যাদবের দুরন্ত বোলিং যে কাজটি করেছিল তাকেই জয়ে রূপান্তরিত করে ঈশান, ধাওয়ানের পার্টনারশিপ।

কুলদীপ যাদব বলেছেন দ্রাবিড় স্যার তাকে সাহস যুগিয়েছেন। তাই খেলার পুরো প্রক্রিয়া টাকেই সে উপভোগ করছে। লেজেন্ড দ্রাবিড়ের পরামর্শ ও ধাওয়ানের অভিজ্ঞ নেতৃত্বের সাথে পৃথ্বী,ঈশান, ক্রুনাল ও কুলদীপ দের আগ্রাসী খেলা নবীন ও প্রবীণদের এই মিশ্রণকে বিপক্ষ যে কোনো দলের জন্য খুবই ঘাতক করে তুলতে পারে। একদিকে রাহুল দ্রাবিড় ও শিখর ধাওয়ান যেমন নিজেদের কোচ ও ক্যাপ্টেন হিসেবে যোগ্য প্রমাণ করেছে। তেমনই পৃথ্বী, সূর্যকুমার, ঈশান ও কুলদীপদের মধ্যে আগামী প্রজন্মের অপ্রতিরোধ্য ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রতিচ্ছবি খুঁজে পাচ্ছেন অনেকেই। রবি শাস্ত্রীর পর রাহুল দ্রাবিড়ের হেড কোচ হওয়ার সম্ভাবনা আরো জোরালো হয়েছে কাল। অজিত আগারকার জানিয়েছেন হেড কোচ হওয়ার জন্য আর কোনো অডিশন দেওয়ারই প্ৰয়োজন নেই দ্রাবিড়ের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here