ডেস্ক: মুম্বইগামী প্রায় ৩০ হাজার কৃষকদের আন্দোলনের ছবি এখনও টাটকা সকলের চোখের সামনে। দেশের ছোট থেকে বড় সব শ্রেণিতে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে এই শান্তিপূর্ণ মহামিছিল। পুরস্কারও মিলেছে, তাদের সমস্ত দাবি মঞ্জুর করে নিয়েছে ফড়নবীশ সরকার। এবার একই ভাবে আরও বড় আন্দোলনের পথে নামতে উদ্যোগী হয়েছে প্রায় চল্লিশ থেকে পঞ্চাশ হাজার রেলকর্মী। রেলের বিভিন্ন ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা একসঙ্গে সংসদ পর্যন্ত পদযাত্রা করে নিজেদের দাবি পেশ করবেন বলে জানা গিয়েছে।

দেশজুড়ে রেলকর্মীদের দাবি, ন্যাশনাল পেনশন স্কিম তুলে দিয়ে ন্যূনতম বেতন বাড়িয়ে ১৮ থেকে ২৬ হাজার টাকা করতে হবে। প্রসঙ্গত, ২০০৪ সালের পর থেকে কাজে যোগ দেওয়া কর্মীদের ফ্যামিলি পেনশন নিশ্চিত নেই। তা সত্ত্বেও প্রতি মাসে মূল বেতনের ১০ শতাংশ তাদের পেনশন খাতে দিতে হচ্ছে। দীর্ঘকালীন বিক্ষোভের পর অবসরপ্রাপ্ত রেলকর্মীদের পেনশন নিশ্চিত করা গেলেও ২০০৪-এর পর কাজে যোগ দেওয়া কর্মীদের পেনশন স্কিম এখনও অন্ধকারে। অল ইন্ডিয়া রেলওয়েমেনস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক গোপাল মিশ্র বিষয়টি নিয়ে একটি বিবৃতি দিয়ে নিজেদের দাবি-দাওয়াগুলি পেশ করেন।

কিন্তু যদি দেশজুড়ে ৫০ হাজার রেলকর্মী বিক্ষোভে সামিল হন তবে ট্রেন চলাচলের কী হবে? কর্মী এবং ইউনিয়ন, দুই পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এই কর্মসূচীতে রেল চলাচল ব্যাহত হবে না। রেলকর্মীদের জন্য প্রতিকূল অবস্থা চলার কারণে তাদের কি পদক্ষেপ নেওয়া উচিত এই নিয়ে ২০১৬ সালে ইউনিয়নে একটি ভোটাভুটি হয়। ব্যালটের মাধ্যমে সেই ভোটগ্রহনে দেখা যায় প্রায় ৯৫ শতাংশ কর্মীই ধর্মঘটের রাস্তায় যেতে চান।

রেল কর্মীদের বাড়তে থাকা অসন্তোষ যাতে বড় বিক্ষোভের আকার না হয় সেই কথা মাথায় রেখে তিন সদস্যের কমিটিও গড়া হয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর নেতৃত্বে। কিন্তু সেই কমিটির তরফে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। অন্যদিকে, সময়ের সঙ্গে বেড়েই চলেছে রেলকর্মীদের ক্ষোভ। দলে দ্রুত যদি ব্যবস্থা না নেওয়া হয় তবে ১৯৭৪ সালের মতোই পরিণতি অপেক্ষা করতে পারে। সেই সময় বেতন বৃদ্ধির দাবিতে একবার ধর্মঘট ডেকেছিলেন রেলকর্মীরা। প্রায় তিন সপ্তাহ চলে সেই ধর্মঘট। তিন সপ্তাহের জন্য অচল হয়ে পড়েছিল পরিবহণ ব্যবস্থা। একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি করতে দিতে সরকার কোনও দিনই চাইবে না। ফলে এখন রাজনাথের কমিটি সিদ্ধান্ত না নিলে সেই দিন খুব দূরে নেই যখন সংসদগামী ৪০-৫০ রেলকর্মীদের মিছিল দেখতে পাবে গোটা ভারত।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here