শ্রীলঙ্কা ও ভারতে রাম মাহাত্ম্যের স্থান ঘোরাতে ফের রেলের উদ্যোগে ‘শ্রীরাম যাত্রা’ ট্রেন

0
434
kolkata bengali desk

মহানগর ওয়েবডেস্ক:মোদীরাজে রাম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব৷ দেশজুড়ে জয় শ্রীরাম এর ভক্তদের দাপটে অস্থির সম্প্রীতি৷ যা হোক এবার আর মন্দির, মূর্তি নয়৷ সরাসরি রাম মাহাত্ম্যের স্তনাগুলি ঘোরাতে নয়া উদ্যোগ নিল ভারতীয় রেল৷ শুধু দেশেই নয়, শ্রীলঙ্কার রামের সঙ্গে জড়িত জায়গাগুলি ঘোরাবে গয়ালের মন্ত্রক৷ এই বিশে? ভ্রমণের নাম শ্রীরাম ট্রেন যাত্রা৷ উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যা থেকে শ্রীলঙ্কার রাম মাহাত্ম্যের স্থানগুলি পর্যন্ত যেতে পারবেন যাত্রীরা। এক্ষেত্রে যাত্রীদের চেন্নাই থেকে উড়ানে দ্বীপরাষ্ট্রে নিয়ে যাওয়া হবে।’শ্রী রাম যাত্রা’ ট্রেনের সূচনা হবে রাজস্থানের জয়পুর থেকে৷

 

রাম ভ্রমণে রাম সাফল্য পেয়েছিল গত বছর ভারতীয়রেল৷ তাই ফের রামের শরণে যাত্রা। উদ্দেশ রোলের কোষাগার বৃদ্ধি৷ এবারও রামায়ণ মহাকাব্যে বর্ণিত স্থানগুলি ছুঁয়ে যাবে বিশেষ ট্রেন ‘শ্রী রাম যাত্রা’। উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যা থেকে শ্রীলঙ্কার রাম মাহাত্ম্যের স্থানগুলি পর্যন্ত যেতে পারবেন যাত্রীরা। এক্ষেত্রে যাত্রীদের চেন্নাই থেকে উড়ানে দ্বীপরাষ্ট্রে নিয়ে যাওয়া হবে। গত বছর আইআরসিটিসির উদ্যোগে রেল চারটি ট্রেন এর অন্তর্ভূক্ত করলেও এবছর এখনও পর্যন্ত দুটি ট্রেনের কথা জানা গিয়েছে। প্রথম ট্রেনটি ছাড়বে রাজস্থানের জয়পুর থেকে আগামী ৩ নভেম্বর। চলতি বছরে শ্রী রাম যাত্রা ট্রেনটির ভাড়া ধার্য হয়েছে জনপ্রতি ১৬,০৬৫ টাকা। এক্ষেত্রে যাত্রীরা ১৬ রাত্রি ১৭ দিনের ভ্রমণে ভারতের রাম মাহত্ম্যের স্থানগুলি দেখবেন। শ্রীলঙ্কা যেতে হলে খরচ পড়বে মাথাপিছু ৩৬,৯৫০ টাকা। পনেরোটি গন্তব্যস্থলকে আনা হল রামায়ণ সার্কিটের আওতায়, জানালেন পর্যটন মন্ত্রী প্রহ্লাদ সিং প্যাটেল৷ দ্বিতীয় ট্রেনটির নাম দেওয়া হয়েছে, ‘রামায়ণ এক্সপ্রেস’। মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর থেকে যাত্রা শুরু করে বারাণসী হয়ে এটি নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছবে। নভেম্বরের ১৮ তারিখ ছাড়বে রামায়ণ এক্সপ্রেস। জানা গিয়েছে, আরও একটি ট্রেন মাদুরাই  থেকে ছাড়তে পারে সেপ্টেম্বর মাসেই।

 

২০১৮ সালের ডিসেম্বরের ১৪ তারিখ দিল্লির সফদরগঞ্জ স্টেশন থেকে ‘শ্রী রামায়ণ এক্সপ্রেস’ যাত্রা শুরু করেছিল। কথিত রাম জন্মভূমি অযোধ্যায় প্রথম থামে সেটি। ট্রেনেই খাবার দেওয়া হয়েছিল যাত্রীদের। ধর্মশালায় থাকার জন্য ছিল সুব্যবস্থা। যাত্রীদের দ্রষ্টব্যস্থানের মাহাত্ম্য বুঝিয়েছিলেন আইআরসিটিসি-র ম্যানেজাররা। সেবার উদ্যোগ ব্যাপক সফল হযেছিল বলে জানায়দয়ালের মন্ত্রক। যাত্রীরা ওই ট্রেনে অযোধ্যার রাম জন্মভূমি, হনুমান গারহি, নন্দীগ্রামের ভারত মন্দির, বিহারের সীতামারীতে সীতা মাতা মন্দির, তুলসী মনস মন্দির এবং বারাণসীর সংকট মোচন মন্দির, ত্রিবেণী সংগম, প্রয়াগের হনুমান মন্দির ও ভরদ্বাজ আশ্রম, শ্রীঙ্গীঋষি মন্দির, রাম জন্মভূমি এবং অযোধ্যাতে হনুমান গারহি, নন্দীগ্রামের ভারত মন্দির, বিহারের সীতামারীতে সীতা মাতা মন্দির, তুলসী মানস মন্দির এবং বারাণসীর সংকট মোচন মন্দির, সীতামারী (ইউপি) এর সীতা সমাহিত স্থল, ত্রিবেণী সংগম, প্রয়াগের হনুমান মন্দির ও ভরদ্বাজ আশ্রম, শ্রীনভারপুরে শ্রীঙ্গীঋষি মন্দির, রামঘাট এবং চিত্রকূটে সতী আনুসুইয়া মন্দির, নাসিকের পঞ্চবটি, রামেশ্বরমে হ্যাম্পি এবং জ্যোতির্লিঙ্গ শিব মন্দির দর্শন করতে পারবেন। দিল্লি থেকে রওনা হল রামায়ণ এক্সপ্রেস, দেখে নিন এর পাঁচটি বৈশিষ্ট্য শ্রীলঙ্কায় যাত্রীরা সীতা মাতা মন্দির, অশোক ভাটিকা, বিভীষণ মন্দির এবং মুন্নেশ্বরমের বিখ্যাত শিব মন্দির – মুন্নারবাড়ির অন্যান্য স্থানগুলির ঘুরে দেখবেন।রাম মাহাত্ম্যের স্থান ঘোরাতে ফের রেলের উদ্যোগে ‘শ্রীরাম যাত্রা’ ট্রেন ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here