nepal

মহানগর ডেস্ক: নেপাল পুলিশের গুলিতে ভারতীয় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার জেরে উত্তরপ্রদেশ ও নেপাল সীমান্ত উত্তপ্ত হয়ে পড়েছে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে এই ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিশাল পুলিশ বাহিনী এলাকায় পৌঁচেছে। সঙ্গে রয়েছে সীমান্ত সেনা বলের জওয়ানরা।

উত্তরপ্রদেশের পিলভিটের পুলিশ সুপার জয়প্রকাশ জানিয়েছেন, স্থানীয় গ্রামের তিন বন্ধু গোবিন্দ সিং, গুরমিত সিং ও পাপ্পু সিং নেপালের বেলোরি বাজারে কিছু কাজের জন্য গিয়েছিলেন। সেখান থেকে বাড়ি ফেরার সময় কোনও বিষয় নিয়ে তিন জনের মধ্যে ঝগড়া হয়। সেই সময় নেপাল পুলিশ গুলি চালায় বলে অভিযোগ। সেই সময় গুলিতে গুরুতর আহত হন গোবিন্দ সিং। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন। অন্য দিকে, ঘটনার পরেই একজন কোনও রকমে ভারতে ফিরে আসেন। তৃতীয় যুবকের খোঁজ এখনও পাওয়া যায়নি।

ঘটনার খবর প্রকাশ পেতেই সীমান্ত লাগোয়া গ্রামবাসীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। তাঁরা সীমান্তে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। পরিস্থিতি ক্রমেই নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। বিশাল পুলিশবাহিনী সীমান্তে পৌঁছয়। গ্রামবাসীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। পুলিশ সুপার জয়প্রকাশ জানিয়েছেন, যে যুবক ভারতে চলে এসেছেন, তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে। ঘটনার সূত্রপাত কি নিয়ে সেই বিষয়ে বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।

এর আগের ভারত-নেপাল সীমান্তে ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। গত বছর জুন মাসে নেপাল পুলিশের গুলিতে এক ভারতীয় কৃষকের মৃত্যু হয়েছিল। জানা গিয়েছে, লালবন্দি-জানকীনগর পঞ্চায়েত এলাকায় আন্তর্জাতিক সীমান্তে এসে ভারতীয় কৃষকদের চাষের কাজে বাধা দেয় নেপাল পুলিশের কয়েক জন অফিসার। কৃষকদের সঙ্গে বচসার মাঝেই আচমকা গুলি চালাতে শুরু করে নেপাল পুলিশ। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বিকাশকুমার রাই নামে এক কৃষকের। আরও এক কৃষককে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে নেপাল পুলিশের বিরুদ্ধে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here