kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি : সিঙ্গুরের মাটিতে শিল্প-স্বপ্ন ফিরি করে বেড়ালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বুধবার দুপুরে বিজেপি প্রার্থী রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যের সমর্থনে সিঙ্গুরে রোড করেন অমিত। তখনই জানান, রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় এলে ছোট-বড়-মাঝারি সব শিল্পই হবে।

জমি আন্দোলনকে কেন্দ্র করে ২০০৭ সালে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে সিঙ্গুর। মহাকরণের ক্ষমতায় তখন বাম সরকার। মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। সিঙ্গুরে টাটাদের ন্যানো প্রকল্পে অনুমোদন দিয়েছেন। সরকারের অনুমতি পেয়ে রাতারাতি কৃষিজমির ভোল পাল্টে কংক্রিটের জমিতে পরিণত করে টাটারা। তার পরেই জমি বাঁচাও কমিটি গড়ে আন্দোলনে নামে তৃণমূল কংগ্রেস। প্রবল আন্দোলনের জেরে পিছু হটে সরকার। পাততাড়ি গুটিয়ে রাজ্য ছেড়ে পালায় টাটারাও।

২০১১ সালে ক্ষমতায় এসে আলাদতের আদেশে জমি ফেরাতে শুরু করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। ফের কংক্রিটের জঙ্গল হঠিয়ে চেষ্টা হয় সবুজ ফেরানোর। সিঙ্গুরের বিস্তীর্ণ এলাকায় আবারও মাথা তোলে হরেক কিসিমের ধান, সবজি। যদিও যাঁরা শিল্পের পক্ষে, তাঁদের দাবি, সিঙ্গুরের টাটা প্রকল্প এলাকায় জমিতে আর সোনা ফলে না। এহেন সিঙ্গুরে বুধ-দুপুরে রোড শো করেন অমিত। সিঙ্গুরের বিজেপি প্রার্থী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের সমর্থনে রোড শো করেন তিনি। তখনই সিঙ্গুরবাসীকে আশ্বস্ত করেন, শুধু ছোট কিংবা মাঝারি নয়, রাজ্যে বড় শিল্পও আসবে। শিল্প ফিরবে সিঙ্গুরেও।

রাজ্যে যে বিজেপির সরকার হচ্ছেই সে ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী অমিত। তাঁর দাবি, বিজেপি দুশোর বেশি আসন পাবে। প্রথম তিন দফায় নির্বাচন হয়েছে ৯১টি আসনে। তার মধ্যে বিজেপি ৬৩-৬৮টি আসন পাবে বলেও দাবি করেন অমিত। তবে কে মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসবেন, তা এখনও ঠিক হয়নি বলেই জানান বিজেপির এই সেকেন্ড-ইন-কমান্ড।         

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here