corona news

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: অব্যাহত রইল রাজ্যে করোনা আক্রান্ত বৃদ্ধির সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনা আক্রান্ত হয়ে। ফলে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২২। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২৮ জন। এখন রাজ্যে মোট সক্রিয় চিকিৎসাধীন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫২২। অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ১০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। মঙ্গলবার নবান্নে এই পরিসংখ্যান দেন মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। এই মুহূর্তে রাজ্যে মোট করোনা মুক্তের সংখ্যা ১১৯ জন। এদিকে, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৭২৫।

এদিন মুখ্যসচিব বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১,১৮০টি। এই পর্যন্ত রাজ্যে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৩ হাজার ২২৩ জনের। এখনও পর্যন্ত ৫৮২টি সরকারি কোয়ারেন্টিন সেন্টারে রয়েছেন ৫,৩৮৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নজরদারি শেষ হয়েছে ৪৫১ জনের। এদের মধ্যে ভিন রাজ্য থেকে আসা সন্দেহভাজন, বিদেশ থেকে আসা সন্দেহভাজন, করোনা আক্রান্তের সরাসরি সংস্পর্শে আসা সন্দেহভাজন সকলেই রয়েছেন। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৮৯ জনকে সরকারি কোয়ারান্টিনে রাখা হয়েছে। রাজ্যে হোম কোয়ারান্টিনে রয়েছেন ১৬ হাজার ৫২ জন। অন্যদিকে ২৪ ঘণ্টায় হোম কোয়ারেন্টিনে নজরদারি শেষ হয়েছে ২ হাজার ৫৭৭ জনের।

এদিন মুখ্য সচিব আরও বলেন, মূলত পাঁচটি জেলা থেকে সংক্রমণ হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। নতুন করে আক্রান্তরা কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনা, হুগলি ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসিন্দা। এর মধ্যে ৭৫ শতাংশ কলকাতা হাওড়া ও উত্তর ২৪ পরগনার বাসিন্দা। অন্যদিকে বাকি ২৫ শতাংশ হুগলি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা এলাকার বাসিন্দা। রাজ্যে করোনা আক্রান্তের হার ৫.৩ শতাংশ। রাজ্যে সুস্থ হওয়ার হার ১৮.১শতাংশ বলেই এদিন জানান মুখ্য সচিব। পাশাপাশি রাজ্যে পুল সিস্টেমে করোনা পরীক্ষা হচ্ছে বলে এদিন দাবি করেন তিনি।

রাজ্যে টেস্টের পরিমাণ বাড়ানো হচ্ছে বলেও এদিন জানান মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। তিনি বলেন, রাজ্যে ১৪ টি ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করা হচ্ছে। তিনি জানান একটি ল্যাব এখন বন্ধ রাখা হয়েছে, সেটি চালু হলে দিনে আরও ১০০ টি করে বেশি নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হবে। পাশাপাশি, হোম কোয়ারেন্টিনে থাকলে সামাজিক সংযোগ কমবে জানিয়ে মৃদু সংক্রমণে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পরামর্শ দেন মুখ্য সচিব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here