Home Featured মঙ্গলকোটে তৃণমূল নেতা খুনের নেপথ্যে গোষ্ঠীকোন্দল!

মঙ্গলকোটে তৃণমূল নেতা খুনের নেপথ্যে গোষ্ঠীকোন্দল!

0
মঙ্গলকোটে তৃণমূল নেতা খুনের নেপথ্যে গোষ্ঠীকোন্দল!
Parul

নিজস্ব প্রতিনিধিমঙ্গলকোটে তৃণমূল নেতা খুনের নেপথ্যে গোষ্ঠীকোন্দল! মঙ্গলকোটে লাখুড়িয়া অঞ্চলের তৃণমূল সভাপতি অসীম দাস খুনে গ্রেফতার করা হয়েছে অঞ্চল সহ সভাপতি সাবুল শেখকে। গ্রেফতার হয়েছে সাবুলের অনুগামী সামু শেখকেও। স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশের দাবি, বালিখাদানের রাশ কার হাতে থাকবে তা নিয়ে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই খুন হয়েছেন অসীম। এদিকে, আজ, বৃহস্পতিবার অসীমের বাড়িতে যান তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

স্থানীয় সূত্রে খবর, মঙ্গলকোটের এই অঞ্চলে রয়েছে বৈধ-অবৈধ প্রচুর বালিখাদান। তাই আক্ষরিক অর্থেই এখানে টাকা ওড়ে। যত বালি, তত টাকা। সেই টাকা ধরতেই খেয়োখেয়ি করেন নেতারা। এলাকায় তৃণমূলের দুটি গোষ্ঠীও রয়েছে। বাম সূর্য অস্ত যাওয়ার পর রাজ্যে আসে পালাবদলের সরকার। প্রত্যাশিতভাবেই বদলে যায় বালিখাদানের দখলদারির অধিকার। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, এক সময় টাকা লুঠতেন বাম নেতারা। এখন লুঠছেন শাসক দলের লোকজন।

এই বালিখাদানের রাশ কার হাত থাকবে, তা নিয়েই ছাইচাপা দ্বন্দ্ব ছিল তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর। যার জেরে আগেও একাধিকবার মরতে মরতে প্রাণে বেঁচেছেন অসীম। সোমবার সন্ধ্যায় কাশেমনগর বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে যান অসীম। তার পরেই গ্রেফতার করা হয় সাবুল ও সামুকে। জেরায় ধৃতেরা খুনের কথা কবুলও করেছে বলেও দাবি পুলিশের।

দুর্নীতির উইপোকা যাতে দলকে গ্রাস না করে, সে ব্যাপারে একাধিকবার দলীয় নেতৃত্বকে সতর্ক করে দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল নেত্রীর সেই সতর্কবার্তা যে দলের সবার কানে পৌঁছয়নি, অসীম খুনে তা প্রমাণ হল ফের একবার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here