মহানগর ওয়েবডেস্ক: ‘আরামবাগ টিভি’ র সম্পাদক ও সাংবাদিকের গ্রেফতারের ঘটনায় সরব সাংবাদিক মহল। সোশ্যাল মিডিয়াতে এই নিয়ে নানা অভিমত জানাচ্ছেন অনেকে। এই বিষয়ে গতকাল টুইটারে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। আর আজ এই ঘটনায় সরকারের ভূমিকা ও পুলিশের কাজে অসন্তোষ প্রকাশ করে সরব হলেন বিশিষ্ট জনেরা। তাদের মধ্যে রয়েছেন অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন, সব্যসাচী চক্রবর্তী, তরুণ মজুমদার, বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অশোকনাথ বসু, অম্বিকেশ মহাপাত্র, সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অশোক গঙ্গোপাধ্যায় প্রমুখ।

তাদের দাবি সম্পাদক সফিকুল ও আরামবাগ টিভির আরও এক সাংবাদিককে গ্রেফতার গণতন্ত্রের পক্ষে অশনি সংকেত। গত রবিবার অনলাইন সংবাদমাধ্যম ‘আরামবাগ টিভি’ র সম্পাদক সফিকুল ইসলাম সহ তার স্ত্রী আলিমা বিবি ও ওই চ্যানেলের আরও এক সাংবাদিক সুরজ আলি খান’কে গ্রেফতার করে পুলিশ। মূলত সংবাদ পরিবেশনের নামে তোলাবাজির অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে পুলিশ সূত্রে। যদিও সফিকুলের এক সহকর্মীর দাবি এটা স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশের পুরনো রাগ।

ঘটনার সূত্রপাত এপ্রিল মাসে। আরামবাগ এলাকার স্থানীয় ক্লাবগুলিকে আর্থিক সাহায্যের জন্য চেক বিলি করা হয়। ‘আরামবাগ টিভি’ চ্যানেলের তরফে খবর করা হয় থানা থেকে যে ক্লাবগুলির নামে চেক বিলি করা হচ্ছে তাদের অস্তিত্ব নেই। মূলত তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীদের আর্থিক সাহায্য পাইয়ে দিতেই এই কাজ করছে থানা। এই ঘটনার পর ‘ভুয়ো’ খবর ছড়ানোর অভিযোগে সফিকুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পুলিশ। যদিও আদালতে তার গ্রেফতারির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হয়। কিন্তু গত রবিবার তার নামে মিথ্যা মামলা সাজিয়ে গ্রেফতার করেছে পুলিশ এমনটাই দাবি করেছেন সফিকুলের এক সহকর্মী।

পুলিশের বিরুদ্ধে সরব হওয়া বিশিষ্টজনেরা এই ঘটনায় সফিকুলের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়েছেন। তারা এদিন জানিয়েছেন, ‘দরজা, জানালার তালা ভেঙে, আগাম নোটিশ কিংবা গ্রেফতারি পরোয়ানা ছাড়াই সফিকুল, তাঁর স্ত্রী এবং দুই শিশুসন্তানকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। চুরি, ডাকাতি, ধর্ষণ বা খুনের মতো গুরুতর অভিযোগ নয়, শুধুমাত্র সরকারের কাজের সমালোচনার জন্য পুলিশ যে আচরণ করেছে সংবিধান ও গণতন্ত্রের পক্ষে অশনিসংকেত। সফিকুল, তাঁর স্ত্রী এবং আরেক সাংবাদিক সুরজ আলি খানকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।” এমনটাই জানিয়েছেন অপর্ণা সেন, কৌশিক সেনরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here