ডেস্ক: নিজের সার্ভিস রিভলভার থেকেই গুলি মেরে আত্মঘাতী হলেন মহারাষ্ট্রের ‘সুপার কপ’ হিসাবে পরিচিত হিমাংশু রায়। নিজের চাকরি জীবনে অত্যন্ত কড়া পুলিশ অফিসার হিসাবেই পরিচিত ছিলেন তিনি। জানা গিয়েছে, বহুদিন ধরে মারণ রোগ ব্লাড ক্যানসারে ভুগছিলেন এই সাহসি অফিসার। এনকাউন্টার করার ক্ষেত্রে তাঁর জুড়ি মেলা ছিল ভার। পুলিশ সূত্রে খবর, শুক্রবারই নিজের সরকারি আবাসনে নিজেকে গুলি মেরে আত্মঘাতী হন তিনি। দীর্ঘ সময় ধরে অসুস্থতার কারণে ছুটিতে ছিলেন হিমাংশু।

গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর তাঁকে বম্বে হাসপাতালে নিয়ে যান পরিজনেরা। ডাক্তাররা নিরলস চেষ্টা করলেও এই অফিসারের প্রাণ বাঁচাতে ব্যর্থ হন তারা। সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, নিজের মুখে রিভলভার রেখে গুলি চালিয়েছিলেন হিমাংশু। এই কারণেই তাঁকে বাঁচানো আর সম্ভব হয়নি।

২০১৩ সালে আইপিএলে স্পট ফিক্সিং-এর মামলার জট ছাড়ানো থেকে শুরু করে দাউদ ইব্রাহিমের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা। সবেতেই প্রথম সারিতে থেকে সক্রিয় ভূমিকা নিয়েছিলেন সুপার কপ হিমাংশু। ১৯৮৮ সালের ব্যাচের আইপিএস হিমাংশু শারীরিক অসুস্থতার কারণে ২০১৬ সাল থেকে কাজে যাওয়া বন্ধ করে দেন। এই মৃত্যুর পর তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে অবশ্য মুখ খোলা হয়নি। দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ঘনিষ্ঠ সূত্র মারফৎ খবর, মারণ রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই মানসিকভাবে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছিলেন হিমাংশু। সর্বদা নিজের ফিটনেসকে গুরুত্ব দেওয়া এই নির্ভিক পুলিশ অফিসারের মৃত্যুতে মুম্বইয়ের প্রশাসনিক স্তরে নেমে এসেছে গভীর শোকের ছায়া।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here