মহানগর ডেস্ক: যে কোনও সম্পর্ক গড়ে ওঠে বিশ্বাসের মাধ্যমে। বিশ্বাস না থাকলে যে কোনও ভালো সম্পর্ক সহজেই ভেঙে যায় । তবে স্বামী-স্ত্রী বা প্রেমিক-প্রেমিকার সম্পর্কে তৃতীয় ব্যাক্তির আগমন কোনও নতুন ঘটনা নয়। এটিকে সহজ বাংলা ভাষায় বলা হয় পরকীয়া। সুপ্রিম কোর্টও ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছে পরকীয়া অপরাধ নয়। তবে যে কোনও সম্পর্ক দুটি মানুষের ভিতর অনেক বিশ্বাস নিয়ে তৈরি হয়। কাজেই একজন পরকীয়াতে জড়িয়ে পড়লে অন্যজনকে অনেক সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। তবে সঙ্গী পরকীয়ায় জড়ালে তার ব্যাবহারে বেশ কিছু পরিবর্তন নজর করা যায়।

১. আপনার সঙ্গীর যদি হঠাৎ করেই পছন্দ, অপছন্দ, পোশাক, ব্যাবহারে বদল আসে তাহলে বুঝতে হবে জীবনে নতুন কেউ এসেছে।

২. প্রিয়জনের চোখের ভাষা বোঝা সহজ হয়।যদি আপনার সঙ্গী কিছু লোকাতে চান তাহলে উনি চোখে চোখ রেখে কথা বলতে অস্বস্তি বোধ করবেন।

৩. অত্যন্ত মোবাইল আসক্তি, বার বার ফোন আসলেও সেটি আপনার সামনে এড়িয়ে যাওয়া। তার বন্ধুরাও আপনার প্রশ্নের খুব বিশেষ জবাব না দিয়ে এড়িয়ে যেতে পছন্দ করলে হতে পারে আপনার সঙ্গী পরকীয়ায় মজেছেন।

৪.সঙ্গীর হঠাৎ কোনও দরকারে বার বার বাড়ির বাইরে থাকা বা বাড়িতে থাকলেও আপনাদের মধ্যে কথা কম হওয়া বা তার কথা না বলার ইচ্ছে হয়ত পরকীয়ারই ইঙ্গিত দেয়।

৫. ফোন করলে তাকে সবসময় ব্যস্ত পান কিংবা আপনাকে আগের মত সময় বা ভালোবাসা কোনোটাই দেয় না, হতে পারে এটি পরকীয়ার সংকেত।

৬. উপহার কেনাকার বিল পাওয়া, যেটি উপহার হিসেবে আপনাকে দেওয়া হয়নি। হতেই পারে আপনার সঙ্গী তার বর্তমান সঙ্গীর জন্য সেটি কিনেছে।

অনেক রকম কারণে অনেকের জীবনে পরকীয়া আসে।তবে সম্পর্ক এমন হওয়া উচিত যাতে এমন ঘটনা গুলি সরাসরি আলোচনা করা যায়। এমন হলে অপরকে না ঠকিয়ে আলাপ আলোচনা করে সুস্থ ভাবে সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসা প্রয়োজন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here