ডেস্ক: এতদিন পাকিস্তানের পতাকা ও বিশ্বের ত্রাস আইএসের ধ্বজা মাঝে মধ্যেই উড়তে দেখা গিয়েছে উপত্যকায়। কেন্দ্র ও গোয়েন্দাদের তরফে বহুবার, উপত্যকায় আইএসের উপস্থিতির সম্ভাবনার কথা তোলা হলেও তা কার্যত ফুঁৎকারে উড়িয়েছেন উপত্যকার রাজনৈতিক নেতারা। এবার সেই আশঙ্কাই সত্যি হল জম্মু কাশ্মীরে। অভিযানে নেমে চার জঙ্গিকে খতম করার পর জানা গেল মৃত তাদের মধ্যে এক জঙ্গি আইএসের শীর্ষ কম্যান্ডর। খতম হওয়া ওই আইএস জঙ্গি নেতার নাম দাউদ।

এদিন সকালে অনন্তনাগের সৃগুফোয়ারা অঞ্চলে জঙ্গিদের খোঁজে হঠাৎই অভিযানে নামে ভারতীয় সেনা। সেনার উপস্থিতি টের পেয়ে, তাঁদের লক্ষ্য করে গুলি চালাতে শুরু করে জঙ্গিরা। পাল্টা জবাব দেয় নিরাপত্তাবাহিনীও। সেনা জঙ্গির গুলির লড়াইয়ে খতম হয় চার জঙ্গি। ঠিক তারপরেই জানা যায় মৃত ওই জঙ্গি দাউদ আইএসের কাশ্মীর শাখার প্রধান। অবশ্য বহুদিন আগেই যে আশঙ্কার কথা গোয়েন্দাদের রিপোর্টে প্রকাশ করা হয়েছিল তাই এবার সত্যি হল। জানা যাচ্ছে, দীর্ঘ দিন ধরে উপত্যকায় নিজেদের জমি শক্ত করে গিয়েছে আইএস জঙ্গিরা। এর আগে যতবারই বিছিন্নবাদীরা সেনার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে ততবারই আইএসের পতাকা হাতে দেখা গিয়েছে তাঁদের। তবে পিডিপির মত রাজনৈতিক দলগুলি বারবারই অস্বীকার করে গিয়েছে আইএসের উপস্থিতি। তাঁদের দাবি ছিল সেনাকে বিভ্রান্ত করার জন্যই এই সমস্ত কাজ করেছে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। কিন্ত এবার সেনা অভিযানে আইএসের কম্যান্ডরের মৃত্যুর পর উপত্যকায় আইএস উপস্থিতি নিয়ে আর কোনও সন্দেহ রইল না।

এদিকে, পিডিপি-র সঙ্গে জোট ভেঙে জম্মু-কাশ্মীরে রাজ্যপাল শাসন জারি হওয়ার পর উপত্যকা থেকে জঙ্গিদের সম্পুর্ণরুপে ধুলিস্যাৎ করতে ইতিমধ্যেই জোরকদমে অভিযান চালানোর নির্দেশ দিয়েছে সেনা প্রধান ও কাশ্মীরের ডিএসপি। একইসঙ্গে অমরনাথ যাত্রায় পুণ্যার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এবার সেখানে এনএসজি বা ব্ল্যাক ক্যাট কম্যান্ডো মোতায়েন করা হয়েছে। উপত্যকায় বাড়ি বাড়ি ঢুকে জঙ্গিদের খোঁজে তল্লাশি চালানো ছাড়াও, অমরনাথ যাত্রার সময় পুণ্যার্থীদের পণবন্দি করার মত কোনও ঘটনা ঘটলে তা রুখে দেওয়ার জন্য সর্বদা তৈরি এই বাহিনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here