FotoJet-110

ডেস্ক: উগ্র জাতীয়তাবাদ ও হিন্দুত্বকে হাতিয়ার করে এ রাজ্যে পদ্ম ফোটানোর মিশন নিয়ে নেমেছে বিজেপি। লক্ষ্যে কমপক্ষে ২৩টি আসন। কিন্তু বিজেপির এই স্বপ্নের পথেই কাঁটা বিছিয়ে দেওয়ার কাজ করে দিল মায়াপুরের ইসকন কর্তৃপক্ষ। তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রকাশ্যে ভোট দেওয়ার আবেদন জানানো হয়েছে ইসকনের তরফ থেকে।

রামমন্দির নির্মাণের নামে একাধিকবার ধর্মের জিগির তুললেও হাতে কলমে তা করে উঠতে পারেনি বিজেপি। অন্যদিকে তাদের ভোট চাওয়ার মূল ভিত্তি আবার সেই ‘রামের নাম’ই। কিন্তু ভোট মিটে গেলে সেদিকে নজর না দেওয়ার অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে দীর্ঘদিনের। অন্যদিকে, মায়াপুরকে ইসকন কর্তৃপক্ষের মনে মতো করে গড়ে তুলতে কোনও খামতি নেই মমতার। একাধিক সুবিধা সহ জমি পাইয়ে দেওয়া, ইসকনের ইচ্ছে অনুযায়ী সবই করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ফলে এখন কার্যত মমতার ঋণ ফিরিয়ে দেওয়ার পালা ইসকনের। অন্যদিকে বিজেপি রাজ্যে ছোবল দিতে রীতিমতো ফণা তুলে তৈরি। যা নিয়ে যথেষ্ট চাপের মধ্যে রয়েছেন খোদ তৃণমূল নেত্রীও। সব মিলিয়ে ভোটের প্রকাশ্যে মমতার হয়ে প্রচার করে হিন্দুত্ববাদীদের ভোট অনেকটাই নিশ্চিত করে দিল ইসকন।

এছাড়াও নতুন মন্দির ক্যাম্পাস নির্মাণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কী ভূমিকা ছিল, সেই বিষয়টি সামনে রেখেই লোকসভা নির্বাচনে বৈষ্ণব-সহ সকল ভোটারদের মুখ্যমন্ত্রীর সমর্থনে ভোটদানের আবেদন করেছে ইসকন। সাম্প্রতিক সময়ে প্রায় সাড়ে সাতশো একর জমি দেওয়া সহ বিভিন্ন কর মকুব, এলাকার পরিকাঠামো উন্নয়ন-সহ একাধিক সুবিধা করে দেওয়া হয়েছে। ফলে, স্বাভাবিকভাবেই হিন্দুধর্মের পর্যটনের অন্যতম কেন্দ্র হয়ে মায়াপুর। যার সিংহভাগ কৃতিত্বই রাজ্য সরকারের প্রাপ্য বলা চলে। একই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দীর্ঘদিন ধরে যে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে করে চলেছেন, সেই দাবিও জমি পেল ইসকনের এই আবেদনে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here