রাজেশ সাহা: করোনার মৃত্যুমিছিল শেষ হবেই, আসবে নতুন দিন। এই স্বপ্ন নিয়েই ইতালির ঘরবন্দি মানুষেরা গেয়ে উঠেছিল ‘ও ডে টু জয়’। বৃহস্পতিবার বিকেলে একই স্বপ্ন নিয়ে কলকাতার বউবাজার যেন হয়ে উঠল এক টুকরো ইতালি।

সারা দেশ জুড়ে জারি লকডাউন। ঘরবন্দি সকলেই বিষাদগ্রস্ত। আতঙ্ক ঘিরে রেখেছে মানুষকে। কিন্তু মানুষই স্বপ্ন দেখে। স্বপ্ন দেখে সুদিনের। ঘরবন্দি মহানগর স্বপ্ন দেখে কল্লোলিনী কলকাতার।

বন্দি থাকতে থাকতে হাঁপিয়ে উঠেছিল সকলেই। এদিন বউ বাজারের ব্যোরাক যেন নতুন করে আশা দেখাল। বিরাট কমপ্লেক্সের বাসিন্দারা ব্যালকনি, জানলা, দরজায় দাঁড়ালো দূরত্ব রেখে। প্রত্যেকেই একা। স্বপ্ন ভয়াবহ এই দিনের শেষে আবার এক হয়ে থাকার। মন যে বেঁধে রেখেছে একে অপরকে। সকলেই চায় চেনা হৃদ্যতার স্পর্শ। এক সঙ্গে উঠলো ‘উই শ্যাল ওভারকাম’। কারও হাতে গিটার আর সকলের গলায় সুর। হাতে লেখা পোস্টার ‘সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স’।

ব্যো ব্যারাকের এই আবাসনের বাসিন্দারা এদিন কেউ ক্রিশ্চান নয়। সকলেরই ধর্ম মানুষ। মানুষের জন্য নতুন দিনের কথা ভেবে দৃঢ় বিশ্বাস নিয়ে ২৬ জন একসঙ্গে গেয়ে উঠলেন, আমরা করব জয়।

এখানেই শেষ নয়। ঠিক সেইসময় ওই রাস্তা দিয়ে হেটে যাচ্ছিলেন এক পুলিশ সার্জেন্ট। ঘরবন্দি মানুষের সুবিধার্থে সর্বদা তৎপর পুলিশ। তাঁকে দেখে হাত নেড়ে অভিনন্দন জানালেন বাসিন্দারা। পুলিশ অফিসার ও নতুন দিনের স্বপ্ন দেখার জন্য শুভেচ্ছা জানালেন প্রত্যেককে।

মনের জোর আর সচেতনতা কাটিয়ে দিতে পারে সমস্ত বাধা। এই স্বপ্নই দেখালেন ব্যো ব্যারাকের বাসিন্দারা। রাজ্য তথা দেশবাসীকে নতুন করে আশার আলো দেখাল দৃঢ় প্রত্যয়ের সুর। যেন কোয়ারেন্টিনে গৃহবন্দি থাকা ইতালির ব্যালকনিগুলোতে নিজের মুক্তির স্বাদ খুঁজল ভালোবাসার শহর কলকাতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here