মহানগর ওয়েবডেস্ক: ২০১২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ইতালির দুই নাবিকের ছোড়া গুলিতে কেরল উপকূলে দুই মৎস্যজীবীর মৃত্যু হয়েছিল। সেই খুনের মামলা গড়িয়েছে রাষ্ট্রসংঘের স্থায়ী আদালত পর্যন্ত। ইতালীয় দুই নাবিকের বিচার  ভারতের আদালতে করা যাবে না এমন একটি রায় হেগ–এ অবস্থিত রাষ্ট্রসংঘের স্থায়ী আদালত দেওয়ার পর সরকারের পক্ষ থেকে মামলাটি বন্ধ করার আবেদন জানালে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয় ইতালি সরকার ক্ষতিপূরণের টাকা দিলে তবেই সেই মামলা বন্ধ করা হবে, তার আগে নয়। প্রধান বিচারপতি এস এ বোবডে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন, ‘’ইতালি ওদের (মৃতদের পরিবার) ক্ষতিপূরণ দিক। একমাত্র তবেই আমরা মামলা প্রত্যাহারের অনুমতি দেব।‘’

কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টকে জানানো হয় যে ইতালি সরকার কথা দিয়েছে যে ওই দুই নাবিকের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করবে। তার উত্তরে আদালত জানায়, আগে মৃতের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। প্রধান বিচারপতি সরকারি আইনজীবীকে  বলেন, ‘’আগে চেক এবং মৃতের পরিবারের লোককে আমাদের সামনে আনুন।‘’ এক সপ্তাহের মধ্যে মৃতের পরিবারকে এই শুনানির অংশগ্রহণকারী করে কেন্দ্রকে আবেদন দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে শীর্ষ আদালতের পক্ষ থেকে।

সম্প্রতি রাষ্ট্রসংঘের স্থায়ী আদালত জানিয়েছে ইতালীয় নাবিকদের রক্ষাকবচ থাকায় তাদের বিচার ভারতীয় আদালতে হতে পারবে না। রাষ্ট্রসংঘের ট্রাইবুনাল অবশ্য তাদের রায়ে বলেছে ভারত ক্ষতিপূরণ দাবি করতেই পারে। কেন্দ্রের আবেদনে ভারতের শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, মামলা প্রত্যাহারের আগে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের কথা শোনা প্রয়োজন।

কেন্দ্রের হয়ে মামলা বন্ধ করার সওয়াল করেন সলিসিটার জেনারেল তুষার মেহতা। তিনি আদালতকে জানান, ইতালি সরকারের পক্ষ থেকে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে অভিযুক্ত দুই নাবিকের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করা হবে এবং মৃতদের পরিবারকে সর্বাধিক পরিমাণে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here