kolkata

মহানগর ওয়েবডেস্ক: লড়াইটা ছিল অনেক আগে থেকেই। সিএএ, এনআরসি, বিশ্ববিদ্যালয়ে একের পর এক অশান্তি, রাজ্যপালকে সমাবর্তনে ঢুকতে না দেওয়া সবমিলিয়ে বরাবরের প্রতিবাদ মুখর লাল রঙা যাদবপুর এবার প্রতিদ্বন্দ্বী পেয়েছিল নির্বাচনে। ছাত্রভোটে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে এবার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল বহুমুখি চিরাচরিত এসএফআই, নির্দল ডিএসএফ, ডব্লুটিআই, টিএমসিপি এবং সবশেষে প্রথমবার এই নির্বাচনে অংশ নেওয়া এবিভিপি। এই শেষ নামেই এবার বাড়তি নজর ছিল সকলের। দিনের শেষে অবশ্য শূন্য পেয়েই খুশি থাকতে হল বিজেপির ছাত্র সংগঠন এবিভিপিকে। অন্যদিকে একে একে কলা বিভাগ, ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ ও বিজ্ঞান বিভাগের দখল নিল এসএফআই, ডিএসএফ, ডব্লুটিআই।

প্রায় তিন বছর পর বৃহস্পতিবার নির্বাচন হল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে। তার আগে অবশ্য ভাঙন লেগেছিল এসএফআইয়ের অলিন্দে। দলের নানা অভিযোগ তুলে ইস্তফার হুঁশিয়ারি এসেছিল ছাত্র নেতাদের তরফে। সেখান থেকেই এবারের নির্বাচনে চলে আসে আরও দুই নির্দল ডিএসএফ, ডব্লুটিআই। পাশাপাশি ছিল এবিভিপি ও টিএমসিপি। নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর দেখা গেল কলা বিভাগে রেকর্ড সংখ্যক ভোট পেয়ে বরাবরের মতো এবারও তা নিজেদের দখলে রেখেছে এসএফআই। পাশাপাশি, বিজ্ঞান বিভাগে জিতেছে ডব্লিউটিআই। এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে জয় পেয়েছে ডব্লুটিআই।

তবে যাদবপুরে প্রথমবার নির্বাচনী লড়ায়ে নেমে কিছুটা আশার আলো দেখেছে এবিভিপি। একমাত্র ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে বাকিদের পিছনে ফেলে দুই নম্বরে উঠে এসেছে তারা। বাকি দুই বিভাগে অবশ্য ধর্তব্যের বাইরেই ছিল বিজেপির এই ছাত্র সংগঠন। অন্যদিকে কোনও বিভাগেই খাতা খুলতে পারেনি টিএমসিপি। যদিও, প্রথমবার নির্বাচনে অংশ নিয়ে যাদবপুরে এবিভিপির জেরে গেরুয়া বীজ বপন করা হল বলেই দাবি করছেন রাজ্য বিজেপি নেতারা।

অন্যদিকে, বিক্ষিপ্ত কিছু অভিযোগ উঠলেও বড় কোনও অশান্তি হয়নি এদিনের নির্বাচনে। সাধারণ নির্বাচনের মতো পুলিশ দিয়ে নয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তারক্ষীদের দিয়েই এদিন ভোটগ্রহণ হয়। পুলিশ ছিল ক্যাম্পাসের বাইরে। শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন শেষ হওয়ার পর ডিএসএফের নেতা অভীক দাস জানান, ‘বড় ভোটবাজ পার্টিগুলো যাদবপুরের কাছ থেকে শিখুক কেমন করে ভিন্ন মতকে জায়গা করে দিতে হয়। গণতান্ত্রিক, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন কেমন করে করতে হয়, সেটা যাদবপুরের ছাত্রছাত্রীদের থেকে শিখে নিক বড় পার্টিগুলো’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here