ডেস্ক: টানা ৩০ ঘন্টা ঘেরাওয়ের পর অবশেষে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেরোলেন যাদবপুরের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। বৃহস্পতিবার রাত ১২ টা নাগাদ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেরিয়ে যান তিনি। তবে উপাচার্য বেরিয়ে গেলেও নিজেদের দাবি থেকে সরছে না পড়ুয়ারা। আন্দোলন জারি থাকবে বলে স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিয়েছে ছাত্রছাত্রীরা।

এইপ্রসঙ্গে আর্টস ফ্যাকাল্টি ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক দেবরাজ দেবনাথ বলেন, ‘আমরা ওনাকে আটকে রাখিনি। আমরা শুধু বলেছিলাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেরোতে হলে আমাদের প্রশ্নের জবাব দিয়ে বেরোতে হবে ওনাকে। কিন্তু উনি কোনও প্রশ্নের জাবাবদিহি না করে বেরিয়ে যান।’ তবে উপাচার্য বেরিয়ে গেলেও আন্দোলন জারি থকবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে যাদবপুরের ছাত্রনেতারা। তাঁদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রক্রিয়ায় কোনও ভাবেই মানা হবে না তৃণমূলের হস্তক্ষেপ। নিজেদের দাবিতে অনড় থেকে শুক্রবার ক্লাস বয়কটের ডাক দিয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া ও শিক্ষকরা। সঙ্গে হুঁশিয়ারি ছাত্রদের দাবি না মানা হলে অচলাবস্থা তৈরি করা হবে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। আজ বিকেল ৪ টে পর্যন্ত উপচার্যকে সময় দিয়েছে ছাত্ররা। প্রবেশিকা পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি পদ্ধতি ফিরিয়ে না আনলে আমরণ অনসনে বসবে ছাত্ররা।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিনের প্রবেশিকা পরীক্ষার মাধ্যমে ভরতি প্রক্রিয়াকে বাতিল করাকে নিয়ে সমস্যার সূত্রপাত যাদবপুরে। যার জেরে টানা ৩০ ঘন্টা ঘেরাও করে রাখা হয় উপাচার্য সুরঞ্জন দাসকে। ছাত্রদের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনা সত্ত্বেও বের হয়নি কোনও রফাসূত্র। উপাচার্যের তরফে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ‘কোনও একটি ডিপার্টমেন্টর বক্তব্যের থেকেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ কর্মসমিতির সিদ্ধান্ত। আমি উপাচার্য হিসেবে এই সিদ্ধান্ত মেনে নিতে বাধ্য।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here