news bengali national

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ইচ্ছাকৃত ভাবে ১৫ জন ছাত্রকে কম নম্বর দিয়ে পরীক্ষায় ফেল করানো, আর তারপর সেই কথা সদর্পে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার! দেশ জুড়ে করোনা আতঙ্কের মাঝেই এমন চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়য়ের এক সহকারী অধ্যাপকের বিরুদ্ধে। ঘটনার কথা সামনে আসতেই ওই অধ্যাপককে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আবরার আহমেদ নামে ওই সহকারী অধ্যাপকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ১৫ জন অমুসলিম পড়ুয়াকে পরীক্ষায় কম নম্বর দিয়ে ফেল করিয়েছেন। কারণ ওই ছাত্ররা নাকি সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনকে সমর্থন করেনি। এই কাজ করার পর বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ফলাও করে নিজের কর্মের কথা প্রচারও করেন ওই অধ্যাপক। মুহূর্তেই এই নিয়ে উত্তাল হয় সোশ্যাল মিডিয়া।

এরপরেই আসরে নামে জামিয়া মিলিয়া কর্তৃপক্ষ। সঙ্গে সঙ্গেই ওই সহকারী অধ্যাপককে বহিষ্কার করা হয়। পাশাপাশি তাঁর বিরুদ্ধে তদন্তও শুরু করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়য়ের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে ট্যুইট করে জানানো হয়, ‘ডঃ আবরার আহমেদ, জামিয়ার একজন সহকারী অধ্যাপক সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন তিনি নাকি ১৫ জন অমুসলিম পড়ুয়াকে ইচ্ছাকৃতভাবে ফেল করিয়েছেন। এটা প্রবলভাবে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আচরণবিধির বিরুদ্ধে। তাকে বহিষ্কারের পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে তদন্তও শুরু করা হয়েছে।’

উল্লেখ্য, রাজধানীতে অ্যান্টি সিএএ, এনআরসি ও এনপিআর আন্দোলনের মূল সূত্রপাত এই জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই। গতবছর ১৫ ডিসেম্বর পুলিশের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের মারধর করার অভিযোগ ওঠে। তারপর থেকে এই আন্দোলন আরও তীব্র হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here