national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশের ন্যাক্কারজনক সেই হামলার পর সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছিল সেই ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ। বেলা বাড়তেই পাল্টা ভিডিও ভাইরাল হয়ে ওঠে সোশ্যাল মিডিয়ায় যেখানে দেখা যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রের হাতে রয়েছে পাথর যা নিয়ে বিতর্ক কিছু কম হয়নি। এরইমাঝে প্রকাশ্যে এল আরও এক তথ্য যেখানে দাবি করা হচ্ছে ছাত্রের হাতে থাকা লাল রঙের ওই বস্তুটি আসলে পাথর নয়, ওয়ালেট। এই তথ্য প্রকাশ্যে আসতেই নতুন করে বেড়েছে চাঞ্চল্য।

গত ১৫ ডিসেম্বর জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পুলিশি হামলার যে ঘটনা ঘটে তার সত্যতা ইতিমধ্যেই মেনে নিয়েছে পুলিশ। পরিবর্তে প্রকাশ্যে আসা আরও একটি ভিডিওতে দাবি করা হয় ছাত্রদের হাতে ছিল পাথর। তারা পুলিশের উপর পাথরবাজি করছিল এমনটাও দাবি করা হয়। একাধিক সংবাদমাধ্যমও দেখায় সেই ফুটেজ। তবে সেই ভিডিও আরও ভালভাবে প্রকাশ্যে আসতেই নড়ে উঠল পুরানো দাবি, স্লো-মোশনে ফ্রেম টু ফ্রেম ইন্ডিয়া টুডের তরফে সেই ভিডিওই নতুন করে প্রকাশ করার পর যা দেখা যাচ্ছে তা হল, ওই পড়ুয়ায় হাতে পাথর ছিল না। যুবকের একহাতে ছিল ওয়ালেট অন্য বস্তুটি ঠিকমতো বোঝা না গেলেও অনুমান করা হচ্ছে ওটা কোনওভাবেই পাথর নয়, তবে মোবাইল ফোন হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। স্লো-মোশনে ১০ সেকেন্ডের ফ্রেম টু ফ্রেম ভিজুয়ালে দেখা যাচ্ছে ওই ছাত্রের বাঁ হাতের সম্ভবত মোবাইল ফোন রয়েছে। সেই মুহূর্তে ফ্রেম থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ১৭ সেকেন্ড পর ছাত্রটিকে যখন দেখা যাচ্ছে তখন তাঁর ডান হাতে আর কিছু নেই, খালি। বাঁ হাত তখনও দেখা যাচ্ছে ওয়ালেট।

সংবাদমাধ্যমের দাবি অনুযায়ী, ওই ছাত্রের একহাতে যে ওয়ালেট ছিল তা একরকম স্পষ্ট। কিন্তু দ্বিতীয় হাতে কী ছিল তা পুরোপুরি স্পষ্ট নয়। যদিও ইন্ডিয়া টুডের প্রকাশ করা ভিডিও অনুযায়ী সংবাদ মাধ্যম স্ক্রোল-এর অনুমান সেটি মোবাইল ফোনও হতে পারে। সবমিলিয়ে সংবাদমাধ্যমের তরফে নতুন করে যে ভিডিও প্রকাশ্যে আনা হয়েছে রীতিমতো সাড়া ফেলে দিয়েছে সেই ভিডিও।

Jamia CCTV footage of students entering the reading room – slow motion clip from Alt News on Vimeo.

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here