ডেস্ক: একই দলের সদস্য হওয়ার সুবাদে একসময়ে যথেষ্ট ঘনিষ্ঠ ছিলেন জয়াপ্রদা ও আজম খান। কিন্তু সমাজবাদী পার্টির ঘরোয়া সমীকরণ বদলে যাওয়ায় এখন সেই জয়াপ্রদার চক্ষুশূল হয়ে উঠেছেন আজম খান। দুজনের সম্পর্ক এতটাই তলানিতে এসে ঠেকেছে যে, অত্যাচারি শাসক আলাউদ্দিন খিলজিকে দেখলেই আজম খানের কথা মনে পড়ে যাচ্ছে জয়াপ্রদার।

উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন সাংসদের দাবি, নির্বাচনের সময় আজম তাঁকে বাজে রকমের হেনস্থা করেছিলেন। সেই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে জয়াপ্রদা বলেন, ”পদ্মাবতে খিলজির চরিত্র দেখে আমার আজম খানের কথা মনে পড়ে গিয়েছিল। নির্বাচনী প্রচারে আমাকে উত্যক্ত করতেন তিনি।” জয়াপ্রদা সাংবাদিকদের আরও বলেন, ‘অনুগামীদের সামনে উনি (আজম) আমার সম্পর্কে অশালীন শব্দের ব্যবহার করেন। আমি কখনও ভাবতেও পারি না নিজের দলের লোক হয়েও তিনি কীভাবে আমার বিরুদ্ধেই প্রচার করতে থাকেন।”

এর আগে ২০১২ সালে আজমের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়েছিলেন জয়াপ্রদা। আজম খানের বিরুদ্ধে অশ্লীল ছবি দিয়ে পোস্টার ছাপিয়ে ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টারও অভিযোগ তুলেছিলেন তিনি। কিন্তু কেন দুজনের মধ্যে এহেন দ্বন্দ্ব? জয়াপ্রদার দাবি, সমাজবাদী পার্টির ছেড়ে অমর সিং-এর শিবিরে যোগ দেওয়ার কারণেই আজমের সঙ্গে তিক্ততা সৃষ্টি হয় তাঁর। কারণ, বলিউড অভিনেত্রী উত্তরপ্রদেশের যে রামপুর কেন্দ্রে সপা হয়ে লড়ে ৮৫ হাজার ভোটে সে বছর জিতেছিলেন, সেখানে তাঁকে এনেছিলেন আজমই।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here